kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

চট্টগ্রামে সংক্রমণ ব্যাপকহারে বাড়ছে

গত ২৬ ডিসেম্বর চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত রোগী ছিল মাত্র তিনজন

নূপুর দেব, চট্টগ্রাম   

১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা হঠাৎ করে বাড়ছে। গতকাল সোমবার সকাল ৮টার আগের ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রামে দুই হাজার ৮৮৩টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত রোগী ৭৪২ জন। পরীক্ষা অনুপাতে শনাক্তের হার ২৫.৭৪ শতাংশ। এই সময়ে মারা গেছেন তিনজন।

বিজ্ঞাপন

সংক্রমণ বাড়লেও নগরী ও জেলাগুলোয় মাস্ক পরার প্রবণতা দেখা যাচ্ছে না এবং অন্য স্বাস্থ্যবিধিও উপেক্ষিত।

চট্টগ্রামে চলতি বছর শুরুর পর থেকে সংক্রমণ ব্যাপক হারে বাড়তে থাকে। সর্বশেষ গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত রোগী ছিল মাত্র তিনজন। গত ৯ জানুয়ারি সংক্রমণ ১০০ অতিক্রম করে। সেদিন ১০৪ জন রোগী শনাক্ত হয়। গতকালের আগের দিন রবিবার পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ৯৮৩টি নমুনা পরীক্ষায় ৫৫০ জন শনাক্তের তথ্য দেওয়া হয়েছিল। আক্রান্তের হার ছিল ২৭.৭৪ শতাংশ। আগের দিনের তুলনায় গতকাল শনাক্তের হার কমলেও সংক্রমণ সংখ্যা বেড়েছে।

নগরীর চকবাজার, কাজীর দেউড়ি, আন্দরকিল্লা, টেরিবাজার, রিয়াজউদ্দিন, হকার মার্কেট, সিরাজদৌল্লাহ সড়কসহ গতকাল বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, অধিকাংশ মানুষের মুখে মাস্ক নেই, তাদের কাছে সামাজিক দূরত্ব বলতেও যেন কিছুই নেই। সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। এমনকি করোনাভাইরাসের টিকাদান কেন্দ্রগুলোতে ভিড়ের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানার পরিমাণ ছিল হাতেগোনা।

আন্দরকিল্লা মোড়ে ফোরকান উদ্দিন নামের এক ব্যক্তি বলেন, ‘কেউ কিছু মানছেন না। আমরা মুখে মাস্ক দিলে কী হবে। যাদের সঙ্গে কথা বলতে হয় তাদের অনেকের মুখে মাস্ক নেই। ’ চকবাজার এলাকায় জমির নামের এক যুবক বলেন, ‘অনেকে টিকাও দেননি। তাদের দ্রুত টিকা দেওয়া দরকার। টিকা না দিলে আরো বেশি আক্রান্তের ঝুঁকি আছে। ’ কাজীর দেউড়ি মোড়ে এক দোকানদার বলেন, ‘কেউ মাস্ক পরছেন না। ’



সাতদিনের সেরা