kalerkantho

বুধবার । ২৯ জুন ২০২২ । ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৮ জিলকদ ১৪৪৩

আরসা কমান্ডারের ভাই অস্ত্রসহ আটক

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মিয়ানমারের নিষিদ্ধ সশস্ত্র গোষ্ঠী আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) কমান্ডার আতাউল্লাহ আবু আম্মার জুনুনীর ভাই মো. শাহ আলীকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ আটক করা হয়েছে। গতকাল রবিবার ভোররাতে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং শিবিরের একটি ‘ইয়াবা কারবারি ও অপহরণকারী রোহিঙ্গা ডেরা’ থেকে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)-১৪-এর অভিযানে আটক হন তিনি। আতাউল্লাহ পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ও সৌদি নাগরিক।

এপিবিএন-১৪-এর অধিনায়ক (পুলিশ সুপার) নাঈমুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বিজ্ঞাপন

তিনি জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে শাহ আলী তাঁর বড় ভাই আরসা নেতা জুনুনীর সঙ্গে যোগাযোগ থাকার কথা স্বীকার করেছেন।

শাহ আলীকে আটকের পর সাধারণ রোহিঙ্গাদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তারা মনে করছে, আরসা কমান্ডারের ভাই বড় কোনো মিশন নিয়ে শিবিরে ঢুকে থাকতে পারেন। রোহিঙ্গাদের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে বাধা দেওয়ার কৌশল নিয়েও শাহ আলী কুতুপালং শিবিরে আসতে পারেন। কুতুপালং শিবিরের রোহিঙ্গাদের সন্দেহ, শাহ আলী পাকিস্তান থেকে এসেছেন। তিনি মিয়ানমারের আরাকানে এবং বাংলাদেশে আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলেন। তবে পুলিশ বলে আসছে, বাংলাদেশে আরসার কোনো অস্তিত্ব নেই।

এপিবিএন অধিনায়ক নাঈমুল হক জানান, শাহ আলীকে আটক করা হয়েছে কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের নৌকা মাঠ এলাকা থেকে। এ সময় তাঁর কাছ থেকে ইয়াবা বিক্রির লক্ষাধিক টাকা, একটি দেশীয় অস্ত্র এবং বড় একটি ধারালো ছুরি জব্দ করা হয়। তাঁর ডেরা থেকে এক অপহৃত রোহিঙ্গাকেও উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁকে বোরকা পরিয়ে রাখা হয়েছিল সেখানে। তাঁর কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়।



সাতদিনের সেরা