kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৩০ জুন ২০২২ । ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৯ জিলকদ ১৪৪৩

ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে দুই পক্ষে সংঘর্ষ

♦ সামনে অবস্থান নিয়ে বাগবিতণ্ডা থেকে সংঘর্ষ
♦ ইটের আঘাতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আহত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৫ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর সমাবেশে দুই পক্ষে সংঘর্ষ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে গতকাল প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে মারামারিতে জড়ায় ছাত্রলীগের দুই পক্ষ। ছবি : কালের কণ্ঠ

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে সমাবেশের সামনে অবস্থানকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। পরিস্থিতি শান্ত করতে গিয়ে কর্মীদের ইটের আঘাতে আহত হয়েছেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য। সংঘর্ষে আরো ১০-১২ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে আয়োজিত সমাবেশে কবি জসীমউদ্দীন হল ও ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে এই সংঘর্ষ হয়।

বিজ্ঞাপন

আহতরা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালসহ রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর ২টার দিকে সমাবেশ শুরু হওয়ার কথা। নির্ধারিত সময়ের আগেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মীরা অপরাজেয় বাংলার পাদদেশে জড়ো হন। মঞ্চের বাঁ পাশে আগে থেকেই অবস্থান নেয় ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগ। পরে মিছিল নিয়ে কবি জসীমউদ্দীন হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা সেখানে অবস্থান নিতে যান। এ সময় ঢাকা কলেজের নেতাকর্মীদের বাধা দিলে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়ান নেতাকর্মীরা। এ সময় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক মঞ্চ থেকে নেমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে এলে চেয়ারের আঘাতে আহত হন। পরে নেতাকর্মীদের ইটের আঘাতে মাথা ফেটে যায় সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের। তাঁকে উদ্ধার করে রাজধানীর নিউরোসায়েন্স হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। চিকিৎসা শেষে তিনি আবার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কর্মসূচিতে যোগ দেন। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ১০-১২ জন নেতাকর্মী আহত হন। এ অবস্থায় এক ঘণ্টার বেশি সময় পরে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সংগঠনের সর্বোচ্চ নেতা আহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীরা। তাঁরা বলছেন, সংগঠনের চেইন অব কমান্ড ভেঙে পড়েছে। এ কারণেই এমন ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে।

জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সহসভাপতি সৈয়দ আরিফ হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর মতো গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে সাধারণ সম্পাদক আহত হয়েছেন। এ ঘটনার মধ্য দিয়ে বর্তমান কমিটির ব্যর্থতা, সাংগঠনিক দুর্বলতা ও চেইন অব কমান্ড ভেঙে পড়ার প্রমাণ মেলে।  

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নানা কর্মসূচি পালন করে সংগঠনটি। সকাল ৭টায় ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। সাড়ে ৭টায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সব সাংগঠনিক কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হলে কেক কেটে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে অপরাজেয় বাংলায় সমাবেশ শেষে আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি অপরাজেয় বাংলা থেকে শুরু হয়ে শাহবাগ-মৎস্য ভবন-কাকরাইল-পল্টন হয়ে গুলিস্তানের বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

এর আগে শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক। এ সময় অন্যদের মধ্যে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, মাহবুবউল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেনসহ ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।



সাতদিনের সেরা