kalerkantho

সোমবার । ৮ আগস্ট ২০২২ । ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯ । ৯ মহররম ১৪৪৪

ইসি গঠনে রাষ্ট্রপতির সংলাপে ন্যাপ

এখনো উদ্যোগ নিলে আইন প্রণয়ন সম্ভব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এখনো উদ্যোগ নিলে আইন প্রণয়ন সম্ভব

নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে গতকাল বঙ্গভবনের দরবার হলে সংলাপে অংশ নেয় বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ)-এর কার্যকরী সভাপতি (দায়িত্বপ্রাপ্ত) আইভি আহমেদের নেতৃত্বে এক প্রতিনিধিদল। ছবি : পিআইডি

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে ১৪ দলের শরিক ন্যাপ। গতকাল রবিবার বিকেলে বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সংলাপে দলটি এ দাবি জানায়। দলের লিখিত প্রস্তাবে বলা হয়, এখনো উদ্যোগ নেওয়া হলে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়ন সম্ভব।

ন্যাপের কার্যকরী সভাপতি আইভি আহমেদের নেতৃত্বে সাত নেতা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সংলাপে অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

তাঁরা হলেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান ও কাজী সিদ্দিকুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিক আহমেদ খান, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক পার্থ সারথী চক্রবর্তী, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য অনিল চক্রবর্তী।

রাষ্ট্রপতিকে দেওয়া ন্যাপের প্রস্তাবে বলা হয়েছে, স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত ১২ জন সিইসি ও ২৭ জন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। সংবিধানের আলোকে রাষ্ট্রপতি এ নিয়োগ দিয়েছেন। কিন্তু এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো আইন করা হয়নি। নির্বাচন কমিশন গঠনে আইনের কথা সংবিধানে বলা আছে। এখনো উদ্যোগ নিলে নির্বাচন কমিশন গঠনে আইন প্রণয়ন সম্ভব। আইন করে নির্বাচন কমিশন গঠন করলে এ বিষয়ে কারো কোনো কথা বলার সুযোগ থাকবে না এবং তুলনামূলক একটি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দিকে অগ্রসর হওয়া যাবে।

প্রস্তাবে বলা হয়, সরকারের পক্ষ থেকে আবারও সার্চ কমিটির মাধ্যমে ইসি গঠনের কথা বলা হয়েছে। সার্চ কমিটির মাধ্যমে এর আগে যে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছিল, এমন নির্বাচন কমিশন আমরা চাই না। জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করার মধ্য দিয়ে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করতে না পারলে গণতন্ত্র অর্থবহ ও টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়। এমন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে যাঁরা কারো আজ্ঞাবহ না হয়ে সাংবিধানিক পবিত্র দায়িত্ব পালনে দৃঢ় থাকবেন।

ইসি গঠনে রাষ্ট্রপতিকে সাতটি প্রস্তাব দিয়েছে ন্যাপ। সংবিধানের ১১৮ অনুচ্ছেদ অনুসারে আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে। জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী যোগ্য, দক্ষ, নির্মোহ নির্বাচন কমিশন গঠনের কথা বলেছে।

 



সাতদিনের সেরা