kalerkantho

সোমবার ।  ১৬ মে ২০২২ । ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩  

রায়পুরায় র‌্যাবের ওপর হামলা, আহত ৭

দুই মামলা, একজন গ্রেপ্তার

রায়পুরা (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার চানপুর ইউনিয়নের কুঁড়েরপাড় গ্রামে উচ্ছেদ হওয়া একটি পরিবার র‌্যাব-১১-এর সহযোগিতায় বাড়ি ফেরার সময় হামলার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রবিবার মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত শনিবার সকালে স্থানীয় এরশাদ মিয়া গ্রুপ এ হামলা চালায়। এতে র‌্যাবের তিন সদস্য ও পরিবারটির চারজন আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় র‌্যাব তিনটি টেঁটা ও দুটি বল্লমসহ বাচ্চু মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে।

বিজ্ঞাপন

তিনি কুঁড়েরপাড়ের মৃত ছাদির মিয়ার ছেলে।

গতকাল বিকেলে র‌্যাব-১১-এর ডিএডি মো. রেজাউল হক বাদী হয়ে অস্ত্র উদ্ধার ও হামলার অভিযোগে রায়পুরা থানায় পৃথক দুটি মামলা করেন। দুটি মামলায় পাঁচজন করে ১০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় ২০ থেকে ২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন র‌্যাব-১১-এর কর্পোরাল হেলাল, এএসআই আসাদুজ্জামান, এএসআই আব্দুর রাজ্জাক ও ঢাকায় র‌্যাব সদর দপ্তরে কর্মরত এএসআই ইউসুফ আলীর স্ত্রী-সন্তানসহ পরিবারের চারজন। পরে আহতদের নরসিংদীর সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, শনিবার এএসআই ইউসুফ আলী র‌্যাব সদর দপ্তরের কমান্ডার ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মো. তৌহিদুল মবিন খানের কাছে লিখিত অভিযোগে জানান, কুঁড়েরপাড় গ্রামের বাড়ি থেকে তাঁর পরিবারকে উচ্ছেদ করা হয়েছে। বর্তমানে পরিবারটি নরসিংদী সদরে একটি ভাড়া বাসায় আছে। ক্যাম্প কমান্ডারের নির্দেশে ওই দিনই র‌্যাব-১১-এর ১০ সদস্য পরিবারটির পাঁচ-ছয়জনকে সঙ্গে নিয়ে নরসিংদী সদর লঞ্চঘাট থেকে একটি ট্রলারযোগে কুঁড়েরপাড়ে রওনা দেন। সেখানে পৌঁছার পর র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে এরশাদ গ্রুপের লোকজন গুলিবর্ষণ করে এবং টেঁটা ও বল্লম ছুড়ে মারে। এতে র‌্যাবের তিন সদস্য ও পরিবারটির চারজন আহত হন। পরে জানমাল ও সরকারি সম্পদ রক্ষায় র‌্যাব ২৩ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এরপর রায়পুরা থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়।



সাতদিনের সেরা