kalerkantho

বুধবার ।  ১৮ মে ২০২২ । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩  

ইয়ামিনকে অপহরণ করে হত্যা

ল্যাপটপ কিনতে মুক্তিপণ চেয়েছিল খুনিরা

নরসিংদী প্রতিনিধি   

৫ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অপহরণ করে মুক্তিপণের টাকায় গেমিং ল্যাপটপ কিনতেই শিশু ইয়ামিনকে হত্যা করা হয়েছে। ভারতীয় টিভি সিরিয়াল ক্রাইম প্যাট্রল ও সিআইডি দেখে এ হত্যায় উদ্বুদ্ধ হয় অপহরণকরীরা। শিশু ইয়ামিন নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার উত্তর বাখরনগর এলাকার মালয়েশিয়াপ্রবাসী জামাল উদ্দিনের ছেলে। সে উত্তর বাখরনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র।

বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার ভোরে উত্তর বাখরনগর এলাকা থেকে সিয়াম ও রাসেলকে গ্রেপ্তারের পর দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) সাহেব আলী পাঠান। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো রায়পুরার উত্তর বাখরনগর এলাকার মো. নুরুল হকের ছেলে মো. সিয়াম উদ্দিন, পিরিজকান্দি এলাকার মো. কবির মিয়ার ছেলে মো. রাসেল মিয়া, উত্তর বাখরনগর এলাকার মৃত আসাদ মিয়ার ছেলে মো. সুজন মিয়া ও মৃত রাজা মিয়ার ছেলে কাঞ্চন মিয়া।

পুলিশ জানায়, সিয়াম উদ্দিন ও রাসেল মিয়া দুই বন্ধু। গেমিং ল্যাপটপ দিয়ে ইউটিউবে গেম লোড করে দুজন টাকা উপার্জন করার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। সে মোতাবেক গত ২৮ নভেম্বর সকালে উত্তর বাখরনগর মধ্যপাড়ার শিশু ইয়ামিনকে বাড়ির পাশের দোকানের সামনে থেকে অপহরণ করে সিয়ামের বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে ইয়ামিনের মুখ ও হাত-পা বেঁধে বস্তায় ভরে রেখে শিশু ইয়ামিনের মা সামসুন্নাহার বেগমের কাছে ফোন করে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। চাহিদামতো টাকা না পেয়ে ওই দিন সন্ধ্যায় ইয়ামিনকে বালিশচাপা দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়।



সাতদিনের সেরা