kalerkantho

সোমবার ।  ১৬ মে ২০২২ । ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩  

দক্ষতা দেখালেন ক্যাপ্টেন রুবায়েত

মেরামত শেষে ঢাকায় ফিরল সেই উড়োজাহাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৩ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বড় বিপদ থেকে রক্ষা পেয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ক্যাপ্টেন রুবায়েতের দক্ষতার প্রশংসা করেছে যাত্রীরা। বুধবার রাতে ৪২ যাত্রী নিয়ে উড়োজাহাজটি ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম আসে, কিন্তু ল্যান্ডিং গিয়ারে সমস্যার কারণে সেটির চাকা নামেনি। এ কারণে উড়োজাহাজটি অবতরণ করতে গিয়ে আবারও আকাশে উড়ে যায়। এরপর দুই দফা চেষ্টা করে তৃতীয় দফায় উড়োজাহাজটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে অবতরণ করাতে সক্ষম হন পাইলট।

বিজ্ঞাপন

আকাশে থেকে এরই মধ্যে উড়োজাহাজটি বিমানের সব জ্বালানি নিঃশেষ করে ফেলে, যাতে দুর্ঘটনা এড়ানো যায়। এরপর সফলভাবে বিমানটি অবতরণ করাতে সক্ষম হন পাইলট ক্যাপ্টেন রুবায়েত।

জানতে চাইলে ক্যাপ্টেন রুবায়েত এ বিষয়ে গণমাধ্যমে কোনো কথা বলবেন না বলে জানিয়েছেন। তবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিমানের টেকনিক্যাল চেকআপ করছে কারিগরি দল। ল্যান্ডিং গিয়ার, নাকি অন্য সমস্যা আছে, সেটি খতিয়ে দেখছে। এর পরই আমরা জানতে পারব সঠিক কারণ। ’

এদিকে উড়োজাহাজটি ঢাকা বিমানবন্দর থেকে উড়াল দেয় আধাঘণ্টা দেরিতে। ফলে ওড়ার আগেই কোনো কারিগরি ত্রুটি ধরা পড়েছিল কি না, জানতে চাইলে তাহেরা খন্দকার বলেন, মনে হয় না সে রকম কিছু, কারণ উড়ালের আগে সব কারিগরি দিক ওকে বললেই কেবল বিমান ওড়ে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ বিমানের ড্যাশ-৮ মডেলের উড়োজাহাজটি ৪২ যাত্রী নিয়ে ঢাকা শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে রওনা দেওয়ার কথা ছিল ৭টা ১৫ মিনিটে। ৩০ মিনিট দেরিতে সেটি ৭টা ৪৫ মিনিটে রওনা দেয়। এরপর ৮টা ৩০ মিনিটে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে রানওয়ে স্পর্শ করার আগেই অবতরণের চাকাটি (ল্যান্ডিং গিয়ার) আর খুলছিল না। এরপর উড়োজাহাজটি আবারও আকাশে উঠে যায়। এ সময় বিমানের যাত্রীরা চিৎকার করতে থাকে, কেউ আবার দোয়া পড়তে থাকে।

তবে পাইলট রুবায়েত তাদের আশ্বস্ত করে বলেন, ‘একটি কারিগরি ত্রুটি দেখা দিয়েছে, সেটি সারিয়ে নিরাপদে বিমানটি নামানোর চেষ্টা করছি, আপনারা ভয় পাবেন না। ’

বিমানের যাত্রী ছিলেন চট্টগ্রামের সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য ড. আলী রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী। প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘প্রথমে মনে হচ্ছিল, বিমানটি বোয়ালখালীর কোনো পাহাড়ে নামছে। আবার মনে হচ্ছিল, নদীতে নামছে। বিকট শব্দে যাত্রীদের সবাই আতঙ্কিত হয়ে পড়ছিল। আমি সাহস হারাইনি, যত দোয়া ছিল, সবই পড়েছি, আল্লাহর কাছে পড়েছি। ’

এদিকে দুর্ঘটনায় পড়া বাংলাদেশ বিমানের ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজটি প্রাথমিক মেরামত শেষে গতকাল বিকেল ৫টায় চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেছে। ঢাকা থেকে কারিগরি বিশেষজ্ঞ দল এসে উড়োজাহাজের ল্যান্ডিং গিয়ার মেরামত করে। এরপর কোনো যাত্রী ছাড়াই উড়োজাহাজটি ঢাকায় যায়।



সাতদিনের সেরা