kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

এনডিসির গ্র্যাজুয়েশনে প্রধানমন্ত্রী

সমৃদ্ধ দেশ গড়ায় অগ্রসেনা সশস্ত্র বাহিনী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সমৃদ্ধ দেশ গড়ায় অগ্রসেনা সশস্ত্র বাহিনী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মিরপুর ক্যান্টনমেন্টে ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজের (ডিএসসিএসসি) শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে সংযুক্ত হয়ে ‘ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স ২০২১ (এনডিসি)’ এবং ‘আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্স ২০২১ (এএফডাব্লিউসি)’-এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে অংশ নেন। ছবি : পিএমও

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘প্রেক্ষিত পরিকল্পনা ২০৪১’ বাস্তবায়নের মাধ্যমে উন্নত-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ায় সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা ‘অগ্রসেনা’ হিসেবে কাজ করে যাবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি, আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে ২০৪১-এর প্রেক্ষিত পরিকল্পনা বাস্তবায়নে অগ্রসেনা হিসেবে কাজ করে যাবেন। ’

প্রধানমন্ত্রী গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ‘ন্যাশনাল ডিফেন্স কোর্স ২০২১ (এনডিসি)’ এবং ‘আর্মড ফোর্সেস ওয়ার কোর্স ২০২১ (এএফডাব্লিউসি)’-এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে এ কথা বলেন। তিনি গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মিরপুর ক্যান্টনমেন্টে ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজের (ডিএসসিএসসি) শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে সংযুক্ত হয়ে অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা দেশের যেকোনো ক্রান্তিলগ্নে সর্বোচ্চ আত্মত্যাগে সদা প্রস্তুত থাকেন। তাঁরা বৈশ্বিক মহামারি কভিড-১৯ মোকাবেলায় সম্মুখসারির যোদ্ধা হিসেবে নানা রকম কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। তিনি বলেন, ‘২০৭১ সালে স্বাধীনতার শতবর্ষপূর্তি হবে, সেটাও আমাদের মাথায় রেখে এগিয়ে যেতে হবে। জাতির পিতার স্বপ্নের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ ইনশাআল্লাহ সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা গড়ে তুলব। ’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আমাদের সরকারের উদ্দেশ্য ছিল দেশ-বিদেশের উচ্চ পর্যায়ের সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তাদের জন্য একটি শীর্ষ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র গড়ে তোলা। আজ আমি সন্তুষ্টির সঙ্গে বলতে পারি যে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ তার অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে সক্ষম হয়েছে। দেশ-বিদেশের উচ্চপদস্থ সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তারা এ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে সর্বোচ্চ পেশাদারি ও দক্ষতার পরিচয় দিচ্ছেন। ’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ পর্যন্ত ২৪টি বন্ধুপ্রতিম দেশের ৩৮৩ জন সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য এনডিসিতে উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। সময়ের পরিক্রমায় এনডিসি কোর্সের সদস্যসংখ্যা এবং একাডেমিক কার্যক্রমের কলেবর বৃদ্ধি পেয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সশস্ত্র বাহিনী দুর্যোগ মোকাবেলার পাশাপাশি দেশের অবকাঠামো এবং আর্থ-সামাজিক উন্নয়নেও একনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাচ্ছে। জাতিসংঘ শান্তি রক্ষা মিশনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলাসহ শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং শান্তি নিশ্চিতকরণে দক্ষতা ও নিষ্ঠার পরিচয় দিয়ে বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে। আমরা আবারও সর্বোচ্চ শান্তিরক্ষী প্রেরণকারী দেশ হিসেবে গৌরবের স্থানটি ধরে রাখতে সক্ষম হয়েছি। ’

অনুষ্ঠানে এনডিসির কমান্ড্যান্ট লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো. আকবর হোসেন স্বাগত ভাষণে সফলতার সঙ্গে কোর্স সম্পন্ন করার জন্য দেশি-বিদেশি কোর্স মেম্বার, কোর্সের সঙ্গে সম্পৃক্ত ফ্যাকাল্টি মেম্বার ও স্টাফ অফিসারদের আন্তরিক অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানান।

পরিচালনা পর্ষদের সভা : গতকাল ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজ এবং সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজের পরিচালনা পর্ষদের ১৮তম যৌথ সভা গণভবনে অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি হিসেবে এই যৌথ সভায় সভাপতিত্ব করেন।

মালদ্বীপ সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী : আমাদের কূটনৈতিক প্রতিবেদক জানান, প্রধানমন্ত্রী তিন দিনের সফরে আগামী ২২ ডিসেম্বর মালদ্বীপ যাচ্ছেন। গত মার্চে মালদ্বীপের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম মোহাম্মদ সলিহর বাংলাদেশ সফরের ফিরতি সফর হিসেবে তিনি ওই দেশ সফরে যাচ্ছেন।

জানা গেছে, গত ২৭ নভেম্বর মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে দেশটির শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেনের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রীর সফর চূড়ান্ত হয়। প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন সফর সামনে রেখে গত ২৭ নভেম্বর দুই দেশ প্রথমবারের মতো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পর্যায়ে আনুষ্ঠানিক বৈঠকে বসে।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানায়, বাণিজ্য, যোগাযোগ, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য খাতে সহযোগিতাসহ বিভিন্ন বিষয়ে মালদ্বীপের সঙ্গে বাংলাদেশের যোগাযোগ আছে। এ যোগাযোগ আরো এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিপক্ষীয় সফরে মালদ্বীপ যাচ্ছেন।



সাতদিনের সেরা