kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ২৮ জানুয়ারি ২০২২। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রামে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

কাউন্সিলরদের ওপর নির্ভর করছে নগরের উন্নয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৮ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘চট্টগ্রামকে বাংলাদেশের দ্বিতীয় রাজধানী বলা হয়। এটি দেশের গেটওয়ে। শুধু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও আমি গুরুত্ব অনুধাবন করলে হবে না, গুরুত্ব অনুধাবন করতে হবে রাজনৈতিক নেতা ও জনসাধারণকে। যদি এ গুরুত্ব অনুধাবন না করেন, তবে উন্নয়ন ব্যাহত হবে।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ‘যে লক্ষ্যমাত্রা চট্টগ্রামের উন্নয়নের, তা কেন হবে না। শুধু অর্থ বরাদ্দ দিয়ে উন্নয়ন নয়। উন্নয়ন বলতে কতটা সুশাসন কায়েম করতে পারছেন। কাউন্সিলররা কতটা এলাকা পরিষ্কার রাখতে পারছেন, জনসম্পৃক্ততা বাড়াতে পারছেন তার ওপর উন্নয়ন নির্ভর করছে। ’

গতকাল শনিবার চট্টগ্রাম নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসনে বারইপাড়া খাল খনন প্রকল্প কাজ এবং আমবাগান সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, চট্টগ্রাম দেশের অর্থনৈতিক হৃৎপিণ্ড এবং সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের স্বর্ণদুয়ার। এই সত্যটিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপলব্ধি করেন বিধায় চট্টগ্রামে একাধিক মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়ন করেছেন এবং করতে যাচ্ছেন। এসব প্রকল্প চট্টগ্রামের অর্থনৈতিক গুরুত্ব বাড়াবে এবং তার ব্যাপ্তি জাতীয় স্তর পেরিয়ে বৈশ্বিক পর্যায় পর্যন্ত প্রসারিত হবে। বাংলাদেশ এখন বিশ্বের উন্নয়নের রোল মডেল। তিনি বলেন, সিটি করপোরেশনের সক্ষমতার জন্য আয়ের পরিধি বাড়ানো প্রয়োজন।

চসিক মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ।

মেয়র বলেন, ‘চট্টগ্রামের মানুষকে এক কোমর পানি থেকে বাঁচাতে এ খালের প্রয়োজন আছে। জলাবদ্ধতার কারণে অবর্ণনীয় কষ্ট পাচ্ছি। এ খালের কাজ শেষ হলে আর কষ্ট পাব না। ’

হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, অনেক দিন পর এ প্রকল্পের কাজ শুরু হচ্ছে। দীর্ঘদিন হবে হবে করে হচ্ছে না। এবার কাজটা হতেই হবে।

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহিন আরা চৌধুরী, চসিকের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল আলম, কাউন্সিলর এম আশরাফুল আলম প্রমুখ।

৪০ ভিক্ষুককে চাকরিতে ফেরানোর আশ্বাস : চসিকের অস্থায়ী পরিচ্ছন্নতাকর্মী থেকে অব্যাহতি দেওয়া সেই ৪০ ভিক্ষুককে আবার চাকরিতে ফেরানোর আশ্বাস দিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী। গতকাল বিকেলে সিটি করপোরেশনের পুরনো ভবনে অনুষ্ঠান শেষে যাওয়ার পথে ভিক্ষুকরা মন্ত্রীর কাছে চাকরি ফিরে পাওয়ার দাবি করেন। তখন মন্ত্রী তাঁদের দাবি বাস্তবায়নের আশ্বাস দেন বলে তাঁরা জানান।



সাতদিনের সেরা