kalerkantho

সোমবার ।  ২৩ মে ২০২২ । ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২১ শাওয়াল ১৪৪৩  

সিলেটে পররাষ্ট্রমন্ত্রী

যুক্তরাষ্ট্র সবাইকে চাপে রাখতে চায়

সিলেট অফিস   

২৭ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গণতন্ত্র সম্মেলনে বাংলাদেশের ডাক না পাওয়া নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশকে কখনো গণতন্ত্রের কথা বলে, কখনো সুশাসনের কথা বলে, কখনো সন্ত্রাসবাদের কথা বলে চাপে রাখতে চায়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল শুক্রবার সিলেটে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের গণতন্ত্র অন্য কেউ শেখাবে না।

বিজ্ঞাপন

এ দেশের লোকই শেখাবে। ’

গতকাল এক দিনের সফরে সিলেটে আসেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সকালে ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নেমে বিমানবন্দরের নির্মাণাধীন নতুন কার্গো টার্মিনাল পরিদর্শন করেন তিনি। পরিদর্শন শেষে যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্র সম্মেলনে বাংলাদেশকে দাওয়াত না দেওয়া প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘বাইডেন অনেক কষ্ট করে হোয়াইট হাউসে এসেছেন। অনেক ঝামেলা হয়েছে সেটা সবাই জানেন। এখনো হোয়াইট হাউসের মামলা-টামলা, ক্যাপিটালের ঝামেলা যাচ্ছে। এ রকম একটা পরিপক্ব গণতন্ত্রের দেশ, সেখানেই ঝামেলা হচ্ছে। আমরা সেদিক থেকে অনেক ভালো আছি। ’ তিনি আরো বলেন, ‘গণতন্ত্র অন্য কেউ শেখাবে না। আপনার দেশের লোকই শেখাবে। আমাদের দেশে বেশ অনেক বছর ধরে স্থিতিশীল গণতন্ত্র। সব দেশে কিছু ব্যত্যয় আছে, দুর্বলতা আছে। দুর্বলতাকে সামনে নিয়ে আমরা ধীরে ধীরে যাতে আরো ভালো কিভাবে করতে পারি, আমরাই ঠিক করব। অন্যের ফরমাইশে আপনার ভালো হবে না। ’ দেশের মানুষকে সহনশীলতা আরেকটু বাড়ানোর পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে সহনশীলতা আরেকটু বাড়াতে হবে। এটার একটু অভাব আছে। আমরা আমাদের গণতন্ত্র দেখব। কে দাওয়াত দিল, কে দিল না, সেটা সেকেন্ড বিষয়। ’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমেরিকা সবাইকে চাপে রাখতে চায়। তারা বিভিন্ন দেশকে কখনো গণতন্ত্রের কথা বলে, কখনো সুশাসনের কথা বলে, কখনো সন্ত্রাসবাদের কথা বলে চাপে রাখতে চায়। গণতন্ত্র সম্মেলনে বাংলাদেশের ডাক না পাওয়া নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। ’

সরকার ভবিষ্যতে কার্গো ফ্লাইট চালুর নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরকে অনেক বড় করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এটা করা হচ্ছে যাতে শুধু সিলেটের নয়, ভারতের সেভেন সিস্টারের লোকজনও এটি ব্যবহার করতে পারে সে জন্য। আটটি বোর্ডিং ব্রিজ করা হচ্ছে। এখান থেকে বিভিন্ন দেশে সরাসরি ফ্লাইট যাবে। পার্শ্ববর্তী দেশের লোকজনও এখানে আসতে পারবে। ’

এক দিনের সফরকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওসমানী বিমানবন্দরে নির্মাণাধীন কার্গো টার্মিনালের কাজ পরিদর্শন ছাড়াও শহরতলির বটেশ্বরে ইউসেফ কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা ইত্যাদি অনুষ্ঠানে যোগ দেন। রাতে তিনি বিমানের একটি ফ্লাইটে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।



সাতদিনের সেরা