kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

জিপ উল্টে দুজনের মৃত্যু

দুটি অপমৃত্যু মামলা বাইরের কারো দায় দেখছে না পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রাজধানীতে উড়ালসেতুর থামে ধাক্কা লেগে গাড়ি উল্টে সাবেক সেনা কর্মকর্তার ছেলেসহ দুজন নিহতের ঘটনায় বাইরের কারো দায় খুঁজে পায়নি পুলিশ। পুলিশ বলছে, নিহত ফাহমিদ আহমেদ রায়হান বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানোয় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছিলেন।

নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকেও পুলিশের কাছে কোনো অভিযোগ করা হয়নি। উভয়ের স্বজনরা মঙ্গলবার রাতে দুটি অপমৃত্যু মামলা করেছেন।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ কর্মকর্তারা বলেছেন, গাড়িটির প্রকৃত চালক মহসিন এবং সাবেক সেনাপ্রধান জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদের ছেলে ইশরাক আহমেদ স্বাধীনকে তাঁরা আহত অবস্থায় পেয়েছেন। আর কোনো আহতের হদিস মেলেনি।

কাফরুল থানার ওসি হাফিজুর রহমান গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, দুর্ঘটনার সময় চালকের আসনে থাকা নিহত রায়হানের ভুলে বা অন্য কারণে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুর্ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় আর কারো দায় পাওয়া যায়নি। মৃতদের পরিবারের পক্ষ থেকেও অভিযোগ না করায় অপমৃত্যু মামলা করা হয়েছে। ওসি হাফিজুর রহমান আরো জানান, স্বজনরা বলেছেন রায়হানের ড্রাইভিং লাইসেন্স ছিল। তিনি নিজেই নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ আর এখন বিষয়টি সেভাবে দেখছে না। ওসি বলেন, গাড়িতে চালক মহসিন ছাড়াও চারজন ছিলেন বলে তাঁরা জানতে পেরেছেন।

নিহত আইয়ানের মামা আবু তারেক মোহাম্মদ জাকারিয়া এবং রায়হানের মামা হারুন খান অপমৃত্যু মামলা করেন। দুই মামলায়ই ‘গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত’ এবং ‘কোনো অভিযোগ বা সন্দেহ নেই’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ভোর ৫টার দিকে মহাখালীর রাওয়া ক্লাবের সামনে দুর্ঘটনাটি ঘটে। সংশ্লিষ্ট মিত্সুবিশি পাজেরো আউটল্যান্ডার গাড়িটি দ্রুতগতিতে উড়ালসেতুর থামের সঙ্গে ধাক্কা খায়। চালক মহসিনের ভাষ্য মতে, গাড়িতে জেনারেল (অব.) আজিজ আহমেদের ছেলে স্বাধীন ও দুই তরুণীসহ মোট সাতজন ছিলেন। গাড়িটি চালাচ্ছিলেন ফাহমিদ আহমেদ রায়হান (২০)। তিনি নিকুঞ্জ-১ এলাকার প্রয়াত ইলিয়াস আহমেদের ছেলে। আর অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল ওমর ফারুকের ছেলে ওমর আইয়ান (২০) ছিলেন তাঁর পাশের আসনে।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, দুর্ঘটনাস্থলের পাশের একটি সিসিটিভির ফুটেজে দেখা গেছে, গাড়িটি উড়ালসেতুর থামে ধাক্কা লেগে ছয়বার ডিগবাজি খেয়ে দুমড়েমুচড়ে যায়। এ সময় গাড়ি থেকে দুজনকে ছিটকে পড়তেও দেখা যায়।

পুলিশ সূত্র জানায়, দুর্ঘটনার কয়েক মিনিট পরই কাফরুল থানার টহলদল ঘটনাস্থলে পৌঁছে। তবে কয়েকজন আহত এরই মধ্যে নিজেদের মতো দুর্ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। সাবেক সেনাপ্রধানের ছেলে স্বাধীন পুলিশ আসার পরে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) যান।



সাতদিনের সেরা