kalerkantho

শুক্রবার ।  ২৭ মে ২০২২ । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৫ শাওয়াল ১৪৪

বিভাগীয় কমিশনারদের সঙ্গে বৈঠক

নির্বাচন সুষ্ঠু অনুষ্ঠানে আবার ইসির নির্দেশনা

বিশেষ প্রতিনিধি   

২০ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের সামনের ধাপগুলো সহিংসতামুক্ত, অবাধ, সুষ্ঠুভাবে আয়োজনে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নিতে বিভাগীয় কমিশনারদের ডেকে আবারও দিকনির্দেশনা দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

গতকাল শুক্রবার আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সব বিভাগীয় কমিশনারকে ডেকে এই নির্দেশনা দেওয়া হয়।  

বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা, নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মাহবুব তালুকদার, মো. রফিকুল ইসলাম, বেগম কবিতা খানম, ইসিসচিব মো. হুমায়ূন কবীর খোন্দকার, অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক এ কে এম হুমায়ূন কবীর ও আইডিয়া প্রকল্প-২-এর প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবুল কাশেম মো. ফজজুল কাদেরসহ ইসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ছুটির দিনে হঠাৎ এই বৈঠক সম্পর্কে ইসি রফিকুল ইসলাম বলেন, বিভাগীয় কমিশনাররা ঢাকায় সমন্বয় সভায় যোগ দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

তাঁদের ঢাকায় একসঙ্গে পাওয়ার কারণেই প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ বৈঠকের আয়োজন করেন।

কমিশনারদের নির্দেশনা প্রসঙ্গে রফিকুল ইসলাম বলেন, নতুন কোনো নির্দেশনা নয়, আগের নির্দেশনাগুলো যথাযথভাবে পালন করতে বলা হয়েছে। বিভাগীয় কমিশনাররা এ বিষয়ে কমিশনকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, পর্যবেক্ষণ আগের তুলনায় বাড়ানো হবে।

বৈঠক প্রসঙ্গে ইসির অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, সামনের ধাপের ইউপি নির্বাচন যাতে আরো ভালো হয়, কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে—সে জন্য কী কী পদক্ষেপ নেওয়া যায় বৈঠকে সেসব আলোচনা হয়েছে।

এর আগে দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন সামনে রেখে নির্বাচন কমিশন গত ৪ নভেম্বর সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকার সব বিভাগীয় কমিশনার, উপমহাপুলিশ পরিদর্শক, পুলিশ কমিশনার ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তাদের নিয়ে অনলাইনে সভা করে। ওই সভায় নির্বাচনে সহিংসতা এড়াতে নির্বাচন কমিশনের কাছে বেশি পুলিশ মেতায়েন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের প্রস্তাব করেন তাঁরা।

জানা গেছে, গতকালের বৈঠকে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে একসঙ্গে বেশিসংখ্যক ইউপির নির্বাচন করার ব্যাখ্যা দিয়ে বলা হয়, করোনা পরিস্থিতির কারণে যথাসময়ে এ নির্বাচন করা সম্ভব হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে কম সময়ের মধ্যে অনেক ইউপির নির্বাচন করতে হচ্ছে।

গতকালের ওই বৈঠক ছাড়াও নির্বাচন কমিশন সম্প্রতি নির্বাচনে সহিংসতা এড়াতে পুলিশ কী কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তা জানাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে।

গত ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর প্রথম ধাপের ৩৬৯টি এবং ১১ নভেম্বর দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৩টি ইউপির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তৃতীয় ধাপে আগামী ২৮ নভেম্বর ১০০৭ ও চতুর্থ ধাপে আগামী ২৩ ডিসেম্বর ৮৪০টি ইউপিতে ভোট হবে।



সাতদিনের সেরা