kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ মাঘ ১৪২৮। ২০ জানুয়ারি ২০২২। ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নিরাপদ স্যানিটেশন থেকে দেশের অর্ধেকের বেশি মানুষ বঞ্চিত

বিশ্ব শৌচাগার দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বর্তমানে দেশের অর্ধেকের বেশি মানুষ মানসম্পন্ন ও নিরাপদ স্যানিটেশন থেকে বঞ্চিত। এমন পরিস্থিতিতে সবার জন্য পর্যাপ্ত এবং উপযুক্ত স্যানিটেশন সুবিধা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারির ওপর জোর দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

গতকাল বিশ্ব শৌচাগার দিবস উপলক্ষে রাজধানীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত গোলটেবিল বৈঠকে আলোচকরা এ পরামর্শ দেন। ‘ভূমিজ’ এবং ‘ওয়াটারএইড’-এর যৌথ আয়োজনে এ অনুষ্ঠানের সহযোগী হিসেবে ছিল ইউনিলিভারের টয়লেট ক্লিনিং ব্র্যান্ড ‘ডোমেক্স, ‘কিম্বারলি ক্লার্ক’ এবং সামাজিক উদ্যোগ ‘ট্রান্সফর্ম’।

বৈশ্বিক স্যানিটেশন সংকট মোকাবেলা ও সবার জন্য স্বাস্থ্যকর শৌচাগার ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে জাতিসংঘ প্রতিবছরের ১৯ নভেম্বর বিশ্ব শৌচাগার দিবস পালন করে আসছে। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘শৌচাগারের মূল্যায়ন’।

গোলটেবিল বৈঠকে বক্তারা টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা এসডিজি ৬.২ অর্থাৎ সবার জন্য পর্যাপ্ত এবং উপযুক্ত পয়োনিষ্কাশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে বর্তমান স্যানিটেশন কার্যক্রমের প্রক্রিয়া এবং শহরে এটির ব্যবস্থাপনা বিষয়ে করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘যেসব ভবনে সঠিক নিয়ম মেনে স্যুয়ারেজ ও বর্জ্য লাইন থাকবে না, সেসব ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্তের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ওয়াটারএইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর হাসিন জাহান, ইউনিলিভার বাংলাদেশের মার্কেটিং ডিরেক্টর মো. শাদমান সাদিকিন, ভূমিজের প্রতিষ্ঠাতা এবং সিইও ফারহানা রশিদ, ভূমিজের ইনডিপেন্ডেন্ট ডিরেক্টর এবং ইউনিলিভারের ডিরেক্টর তানজিন ফেরদৌস, ডিএনসিসির অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ড. তারিক বিন ইউসুফ, ইসডোর অ্যাডভাইজার অতুল কুমার মজুমদার, ডিএসকের ডিরেক্টর (ওয়াশ) এম এ হাকিম প্রমুখ। এ ছাড়া ভার্চুয়াল মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের আরবান ডেভেলপমেন্ট স্পেশালিস্ট ঈশিতা আলম অবনী, এডিবির প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট স্পেশালিস্ট পুশকার শ্রীবাস্তব ও এডিবির সিনিয়র প্রজেক্ট অফিসার অমিত দত্ত রায়।



সাতদিনের সেরা