kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মামলা করতে যাওয়ার পথে আ. লীগ নেতা গুলিবিদ্ধ

পাঁচ জেলায় নির্বাচনী সহিংসতায় আহত অর্ধশত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৮ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শরীয়তপুর সদর, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, নেত্রকোনা, যশোরের বেনাপোল এবং মাগুরার শালিখায় নির্বাচনী সহিংসতায় ৪৯ জন আহত হয়েছেন। গত দুই দিনে এই সহিংসতার ঘটনা ঘটে।

শরীয়তপুর সদর উপজেলায় মঙ্গলবার রাতে আওয়ামী লীগের এক নেতা ও তাঁর ভাইকে গুলি করে ও কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। আহত জাকির হোসেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক উপ-আইন বিষয়ক সম্পাদক।

বিজ্ঞাপন

তিনি শাহবাগ থানা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

সদর পালং মডেল থানায় করা মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গত ১১ নভেম্বর শরীয়তপুর সদরের তুলাসার ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে জাকির হোসেনের পরিবারের সদস্যরা আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেন। এর জের ধরে শরীয়তপুর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র বাচ্চু বেপারী ও তাঁর সমর্থকরা গত ১৪ নভেম্বর জাকিরের ভাই মেহেদী হাসানকে কুপিয়ে আহত করেন। তাঁকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই ঘটনায় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জাকির হোসেন মামলা করার জন্য পালং মডেল থানায় যান। তখন বাচ্চু ব্যাপারী তাঁর লোকজন নিয়ে থানার বাইরে অবস্থান নেন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে জাকির তাঁর ভাই মনিরকে নিয়ে থানা থেকে বের হয়ে শহরের বটতলা মসজিদ মার্কেটের কাছে গেলে বাচ্চু ও তাঁর সহযোগীরা জাকির ও তাঁর ভাইয়ের ওপর হামলা চালান। তাঁরা জাকিরের ডান পায়ে গুলি করেন। আহত জাকির ও তাঁর ভাই মনিরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাচ্চুর চাচাতো ভাই আব্বাস বেপারী ও সমর্থক জুয়েল কাজীকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার রাতে জাকিরের মা মনোয়ারা বেগম পালং মডেল থানায় মামলা করেছেন। মামলায় বাচ্চু বেপারী, তাঁর ভাই চুন্নু বেপারী, আবু বক্কর বেপারীসহ আটজনকে আসামি করা হয়েছে।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার কয়রা ইউনিয়ন পরিষদের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম ও তাঁর কর্মীদের ওপর গতকাল বুধবার ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হেলাল উদ্দিন ও তাঁর কর্মীরা হামলা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই হামলায় খোরশেদ আলমসহ ছয়জন আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে হাঁসুয়ার কোপে গুরুতর আহত ভদ্রকোল গ্রামের রকিব হাসানকে (৪৫) ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। খোরশেদ আলম সিরাজগঞ্জ ফজিলাতুন্নেছা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এই ঘটনায় এলাকায় এখন চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। মানিকদহ গ্রামের সড়ক সেতুর কাছে ওই হামলার ঘটনা ঘটে।

নেত্রকোনার বিভিন্ন উপজেলায় গত সোমবার থেকে গতকাল পর্যন্ত স্বতন্ত্র ও আওয়ামী লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীদের কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ এবং হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এসব ঘটনায় অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

যশোরের শার্শার ডিহি ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের দুই সদস্য পদপ্রার্থী খানজাহান আলী ও কামরুজ্জামান জজ মিয়ার কর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ২২ জন আহত হয়েছেন।

মাগুরার শালিখা উপজেলার তালখড়ি ইউনিয়নের দিঘলগ্রামে মঙ্গলবার রাতে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়েছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর চার সমর্থক। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রতিনিধিরা। ]



সাতদিনের সেরা