kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ মাঘ ১৪২৮। ২৫ জানুয়ারি ২০২২। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আইল্যান্ড পিক জয় করলেন শায়লা বীথি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আইল্যান্ড পিক জয় করলেন শায়লা বীথি

হিমালয়ের আইল্যান্ড পিকে শায়লা বীথি

বাংলাদেশের পর্বতারোহী শায়লা বীথি হিমালয়ের ছয় হাজার ১৬০ মিটার উঁচু পর্বত আইল্যান্ড পিক জয় করেছেন। তিনি গত সোমবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পর্বতটির চূড়ায় পৌঁছান।

এই অভিযানে শায়লা বীথি হিমালয়ের বিখ্যাত ‘থ্রি পাস’ পাড়ি দেন। তিনি গত ৬ নভেম্বর কংমালা পাস, ৪ নভেম্বর চোলা পাস, ২ নভেম্বর রেঞ্জোলা পাস পাড়ি দেন।

বিজ্ঞাপন

অভিযানে শায়লা বীথির সঙ্গে একজন নেপালি শেরপা ও একজন পোর্টার (মালামাল বহনকারী) ছিলেন।

শায়লা বীথি গত ২৫ অক্টোবর নেপালের কাঠমাণ্ডুর উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন। ২৮ অক্টোবর ভোরে কাঠমাণ্ডু থেকে বিমানে করে লুকলা গিয়ে পৌঁছান। লুকলা থেকেই মূলত অভিযাত্রীদের ট্রেকিং শুরু হয়। পরদিন তাঁরা নেপালের বিখ্যাত পাহাড়ি শহর নামচে বাজার পৌঁছান। এর পরদিন থামে নামের একটি গ্রামে পৌঁছান।

৭ নভেম্বর বিকেল ৪টার দিকে আইল্যান্ড পিকের হাই ক্যাম্পে পৌঁছান শায়লা বীথি। সেখান থেকে পরদিন রাত ২টা ২০ মিনিটে পর্বতের চূড়ার দিকে যাত্রা শুরু করেন। সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটের দিকে চূড়ায় পৌঁছে যান। পরে তিনি সেখান থেকে সফলভাবে নেমে আসেন। এখন তিনি ফেরার পথে রয়েছেন। আগামী ১২ নভেম্বর শায়লা বীথির কাঠমাণ্ডুতে পৌঁছানোর কথা রয়েছে। সেখান থেকে তিনি ১৫ নভেম্বর ঢাকায় ফিরবেন।

এ অভিযানে আইল্যান্ড পিকের চূড়ায় বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি পৌঁছে দিয়েছেন শায়লা। তিনি ধর্ষণ, সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী এবং পরিবেশ রক্ষায় নানা বার্তা সংবলিত প্ল্যাকার্ডও বহন করেন। গত বছর স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিববর্ষ উপলক্ষে একটি ছয় হাজার, একটি সাত হাজার ও একটি আট হাজার মিটার পর্বত অভিযানের ঘোষণা দেন শায়লা বীথি। এ অভিযানের অন্যতম লক্ষ্য পৃথিবীর সর্বোচ্চ স্থান এভারেস্টের চূড়ায় বাংলাদেশের পতাকা ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি পৌঁছে দেওয়া। ঢাকা ট্রাভেল অ্যান্ড ট্রেকিং ক্লাব এই অভিযানটির সার্বিক বিষয়গুলো তত্ত্বাবধান করছে।

শায়লা বীথি প্রথম পর্বত জয় করেন ২০১৬ সালে। সেবার তিনি হিমালয়ের ছয় হাজার ৪৭৪ মিটার উঁচু মেরা পিক জয় করেন। এরপর ২০১৮ সালে তিনি তিব্বতের সাত হাজার ৪৫ মিটার উঁচু লাকপারি পর্বত জয় করেন। ২০১৯ সালে তিনি প্রথম বাংলাদেশি নারী হিসেবে হিমালয়ের দুর্গম তাশি লাপচা পাস অতিক্রম করেন।

নেপালে অবস্থানরত শায়লা বীথি মোবাইল ফোনে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘একজন পর্বতারোহী হিসেবে এ দেশের মুক্তিযুদ্ধ ও জাতির জনকের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আমি এই অভিযানের পরিকল্পনা করি। এই অভিযানে যাঁরা সহযোগিতা করেছেন, আমি প্রত্যেকের প্রতি কৃতজ্ঞ। ’

শায়লা বীথির আইল্যান্ড পিক জয়ে বিভিন্ন মহল থেকে অভিনন্দন জানানো হয়েছে। গতকাল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার তাঁকে অভিনন্দন জানান। তাঁরা বলেন, ‘পর্বতারোহী শায়লা বীথির এ অভিযান ও সাফল্য নারীশক্তির মহান বহিঃপ্রকাশ। ’



সাতদিনের সেরা