kalerkantho

শুক্রবার ।  ২৭ মে ২০২২ । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ২৫ শাওয়াল ১৪৪

মন্ত্রিসভায় সিদ্ধান্ত

ই-কমার্সগুলোকে দুই মাসের মধ্যে নিবন্ধন করতে হবে

আগামী বছর ছুটি ২২ দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ই-কমার্স ব্যবসার সঙ্গে জড়িতদের আগামী দুই মাসের মধ্যে নিবন্ধন করতে হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি আরো জানিয়েছেন, আগামী বছর ২২ দিন সরকারি ছুটি অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় মন্ত্রিসভার বৈঠক। প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালি সভায় অংশ নেন।

বিজ্ঞাপন

পরে সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে সভার সিদ্ধান্ত ও নির্দেশনার কথা জানান খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

মন্ত্রিপরিষদসচিব জানান, মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘আটিয়া বন (সংরক্ষণ) আইন ২০২১’ ও ‘কপিরাইট আইন ২০২১’-এর নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ‘ঔষধ আইন ২০২১’-এর খসড়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে এটির নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়নি। এটি আরো পর্যালোচনা করতে বলা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রিপরিষদসচিব বলেন, ই-কমার্স ব্যবসায় জড়িত সবাইকে আগামী দুই মাসের মধ্যে নিবন্ধন করতে হবে। এর পাশাপাশি বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা রাখতে হবে (ডিপোজিট), যাতে ‘কোনো কিছু হলে’ সেই ডিপোজিট থেকে দেওয়া যায়। মন্ত্রিসভার বৈঠক থেকে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তাদের সবাইকে দুই মাসের মধ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধন করতে হবে। এ ছাড়া গোয়েন্দা এবং যারা এসব তদারক করে, তাদেরও যাচাই করে দেখতে পরিষ্কার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানের বাইরে লেনদেন না করতে ব্যাপক প্রচারাভিযানের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। মানুষকে বোঝানো হবে, যদি কেউ নিবন্ধনের বাইরের কারো সঙ্গে লেনদেন করেন, তা নিজ দায়িত্বে করতে হবে, সেটার দায় সরকার নেবে না।

২০২২ সালে ২২ দিনের সরকারি : আগামী বছর ২০২২ সালে সরকারি ছুটি থাকবে ২২ দিন। সচিব জানান, আগামী বছরের মোট ছুটির মধ্যে জাতীয় দিবস ও ধর্মীয় দিবস উপলক্ষে ১৪ দিন সাধারণ ছুটি থাকবে। এই ছুটির মধ্যে আবার দুই দিন শুক্রবার এবং এক দিন শনিবার পড়েছে, যা সাপ্তাহিক ছুটির দিন। আর বাংলা নববর্ষসহ বিভিন্ন দিবস উপলক্ষে আট দিন নির্বাহী আদেশে ছুটি থাকবে। এর মধ্যেও শুক্র ও শনিবার মিলিয়ে তিন দিন সাপ্তাহিক ছুটি রয়েছে। এর বাইরে ধর্মীয় পর্ব উপলক্ষে অনধিক তিন দিন ছুটি নেওয়া যাবে। পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকা ও এর বাইরে কর্মরত বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর চাকুরেদের প্রধান সামাজিক উৎসব উদযাপন উপলক্ষে দুই দিন ঐচ্ছিক ছুটি রাখা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা