kalerkantho

বুধবার । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৮ ডিসেম্বর ২০২১। ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

৯ বছরেও শেষ হয়নি বিচার

চট্টগ্রামে উড়ালসেতু ধসে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৮ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামে এম এ মান্নান উড়ালসেতুর (ফ্লাইওভার) গার্ডার ধসে ১৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় করা মামলার বিচার ৯ বছরেও শেষ হয়নি। সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে আটকে আছে মামলার রায়। ২০১২ সালে গার্ডার ধসের পর দেশজুড়ে আলোচনার জন্ম দেওয়া এই উড়ালসেতুটি আরেক দফা গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছে। উড়ালসেতুটির আরাকান সড়কমুখী র‌্যাম্পের পিলারে এবার ফাটল দেখা দিয়েছে। যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার প্রেক্ষাপটে বহদ্দারহাটকেন্দ্রিক যানজট বেড়েছে মহানগরীতে।

গতকাল বুধবার ওই মামলার বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আলোচিত মামলাটি এখন চতুর্থ অতিরিক্ত চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন। সর্বশেষ এই মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে ২০১৭ সালের ৪ নভেম্বর। এরপর প্রায় চার বছর পেরিয়ে গেলেও আর কেউ সাক্ষ্য দিতে আদালতে হাজির হননি। সর্বশেষ গত ২৭ জানুয়ারি মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। ওই দিন সাক্ষী হাজির না হওয়ায় আগামী বছরের ১৩ জানুয়ারি পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য করেন বিচারক।

সাক্ষী আদালতে হাজির না হওয়ার ব্যাপারে করোনা সংক্রমণকে দায়ী করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের পাবলিক প্রসিকিউটর মো. ফখরুদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘করোনা সংক্রমণের কারণে দীর্ঘদিন আদালতে স্বাভাবিক কার্যক্রম চলেনি। এ কারণে সাক্ষ্যগ্রহণে দেরি হয়েছে। আগামী ধার্য তারিখে সাক্ষী আদালতে হাজির করা হবে।’ তিনি বলেন, ‘মামলার ২৮ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৮ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়েছে।’ 

আদালত সূত্র জানায়, ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর বহদ্দারহাটে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) নির্মাণাধীন উড়ালসেতুর ১২ ও ১৩ নম্বর  স্প্যানের তিনটি গার্ডার ধসে ১৬ জনের মৃত্যু হয়। আহত হন অর্ধশতাধিক মানুষ।



সাতদিনের সেরা