kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দাওয়াই

নিম্ন রক্তচাপ থাকলে যা করবেন

২৩ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নিম্ন রক্তচাপ থাকলে যা করবেন

অনেকেরই লো প্রেসার বা নিম্ন রক্তচাপ রয়েছে, যাকে হাইপোটেনশনও বলে। দেহের রক্ত সংবহনতন্ত্রে রক্তের সিস্টোলিক চাপ (ওপরেরটা) ১০০ থেকে ১২০ মিমি এবং ডায়াস্টোলিক চাপ (নিচেরটা) ৬০ থেকে ৮০ মিমি পারদ থাকে। এটা রক্তের স্বাভাবিক চাপ। তবে কারো রক্তের সিস্টোলিক চাপ ৯০ মিমির নিচে এবং ডায়াস্টোলিক চাপ ৬০ মিমি পারদের নিচে নেমে গেলে সেটা হাইপোটেনশন বা নিম্ন রক্তচাপ।

বিজ্ঞাপন

নিম্ন রক্তচাপ কোনো রোগ বা স্বাস্থ্য সমস্যা নয়। তবে মনে রাখতে হবে, রক্তচাপ খুব বেশি কমে গেলে মস্তিষ্ক, কিডনি ও হৃৎপিণ্ডে সমস্যা হয়ে রোগী শকেও চলে যেতে পারে। অতিরিক্ত ও দীর্ঘস্থায়ী নিম্ন রক্তচাপের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

 

কারণ

নির্দিষ্ট একক কারণে নিম্ন রক্তচাপ হয় না। এর নানাবিধ কারণ থাকে। যেমন : পানিশূন্যতা, সময়মতো ও সঠিকভাবে খাবার না খাওয়া, অতিরিক্ত পরিশ্রম, মানসিক অস্থিরতা, দুশ্চিন্তা, ভয়, অপুষ্টি, অপর্যাপ্ত ঘুম, ডায়রিয়া, বদহজম, রক্তপাত, রক্তশূন্যতা, গর্ভাবস্থা, হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ইত্যাদি। এ ছাড়া হার্টের সমস্যা, অ্যাড্রিনাল গ্রন্থির সমস্যা, তাপমাত্রার তারতম্য, গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা, দীর্ঘমেয়াদি কোনো রোগে আক্রান্ত থাকা, নার্ভের সমস্যা ইত্যাদি কারণেও নিম্ন রক্তচাপ হয়।

 

উপসর্গ

কিছু উপসর্গ থেকে আমরা খুব সহজেই নিম্ন রক্তচাপে আক্রান্ত ব্যক্তিকে শনাক্ত করতে পারি। যেমন : সব সময় মাথা ঘোরানো, বসা থেকে উঠে দাঁড়ালে হঠাৎ মাথা ঘুরে যাওয়া বা ভারসাম্যহীন হয়ে যাওয়া, চোখে অন্ধকার বা ঝাপসা দেখা, বমিভাব হওয়া, শারীরিক বা মানসিক অবসাদ, খুব বেশি তৃষ্ণা অনুভূত হওয়া, ঘন ঘন শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া, হাত-পা ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া, প্রস্রাব কমে যাওয়া, অস্বাভাবিক হৃত্স্পন্দন হওয়া ইত্যাদি।

 

হঠাৎ নিম্ন রক্তচাপ হলে

কারোর হঠাৎ নিম্ন রক্তচাপ ধরা পড়লে বা প্রেসার কমে গেলে যত দ্রুত সম্ভব তার শরীরে পর্যাপ্ত ফ্লুইড প্রবেশ করাতে হবে। তাত্ক্ষণিক খাওয়াতে হবে ডাব, স্যালাইন, চা, চকোলেট, পানি, দুধ বা অন্য কিছু যা-ই হোক না কেন। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, তাকে পানীয়জাতীয় কিছু খেতে দিতে হবে। শরীরে জলীয় অংশের পরিমাণ বাড়লে কিছুক্ষণ পর দেখা যাবে রক্তচাপ স্বাভাবিক হয়ে আসছে।

 

প্রতিকারে যা করবেন

-    লবণ ও লবণজাতীয় খাবার বেশি খাবেন। ফলমূল খেলেও লবণ মেখে খান। সকাল-বিকেল পান করতে পারেন হালকা লবণ পানি।

-    খাবার স্যালাইন খান। এটা দেহের পানিশূন্যতা ও ইলেকট্রোলাইটের ভারসাম্যহীনতায় বেশ ফল দেয়।

-    দুধ, ডিমসহ পুষ্টিকর খাবার খান।

-    খেতে পারেন কফি, চকোলেট ও ক্যাফেইন-জাতীয় খাবার।

-    কিছুদিন নিয়মিত কিশমিশ খেলেও লো প্রেসার নিয়ন্ত্রণে আসে।

-    মধু, কাঠবাদাম ও চিনাবাদাম খান।

-    তাজা শাক-সবজি খান, কারণ এতে প্রচুর ফলিক এসিড থাকে।

-    পর্যাপ্ত পানি পান, পর্যাপ্ত বিশ্রাম, হালকা ব্যায়াম করুন।

-    ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখুন।

-    ডায়রিয়া হলে দ্রুত চিকিৎসা নিন।

-    দীর্ঘমেয়াদি লো প্রেসার থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

 

যা করবেন না

-    খাবার তালিকা থেকে লবণ একেবারে বাদ দেবেন না।

-    বেশি সময় উপোস বা খালি পেটে থাকবেন না।

-    অনেকক্ষণ শুয়ে বা বসে থাকার পর হটাৎ উঠে দাঁড়াতে যাবেন না; ধীরে ধীরে উঠুন।

-    চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া উচ্চ রক্তচাপের ওষুধ বন্ধ করবেন না।

মায়োক্লিনিক অবলম্বনে

আতাউর রহমান কাবুল



সাতদিনের সেরা