kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দাওয়াই

লবণকে নীরব ঘাতকও বলা হয়

১৫ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



লবণকে নীরব ঘাতকও বলা হয়

দেহের জন্য অত্যাবশ্যকীয় খনিজ পদার্থ লবণ। দেহে পানির ভারসাম্য বজায় রাখা, স্নায়ুর সঠিক সংকেত প্রদান, পেশির সংকোচন-প্রসারণ ইত্যাদি কাজে লবণের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। তবে মাত্রাতিরিক্ত লবণ স্বাস্থ্যের জন্য হুমকি। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা লবণ কম খায় তাদের ৮০ শতাংশের উচ্চ রক্তচাপ নেই।

বিজ্ঞাপন

অতিরিক্ত লবণ দেহের ওপর নানা রকম দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। অতিরিক্ত লবণের ক্ষতি চট করে বোঝা যায় না বলে লবণকে নীরব ঘাতকও বলা হয়।

 

কতটুকু দরকার

একজন সুস্থ মানুষের প্রতিদিন প্রায় তিন গ্রামের মতো লবণ প্রয়োজন। এর মধ্যে এক থেকে দেড় গ্রাম স্বাভাবিক খাবার থেকেই আসে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, দিনে এক চা চামচ বা ৫ গ্রামের কম লবণ গ্রহণ রক্তচাপ, কার্ডিওভাসকুলার রোগ, স্ট্রোক ও করোনারি হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

 

বেশি খেলে যা হয়

►        অতিমাত্রায় বা প্রয়োজনের তুলনায় বেশি লবণ খেলে উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, স্ট্রোক, কিডনির রোগ, পক্ষাঘাত, অন্ধত্বসহ নানা জটিল অসুখ হতে পারে।

►        হাড়ের ক্যালসিয়ামের ঘাটতি হয়ে হাড় ক্ষয় রোগ অস্টিওপোরোসিস হতে পারে। হাড়ের ভঙ্গুরতা বাড়ে।  

►        শারীরিক স্থূলতা দেখা দিতে পারে। পাকস্থলীর ক্যান্সার হওয়ারও আশঙ্কা আছে।

►        শুষ্ক হয়ে যেতে পারে ত্বক। অ্যাজমার উপসর্গ দেখা দিতে পারে।

►        আস্তে আস্তে স্মৃতিশক্তি কমে যায়।

►        কোনো কোনো সময় হাত ও পায়ে পানি চলে আসে বা শরীর ফোলা ফোলা ভাব হয়।

 

যা করবেন

►        রান্নায় আয়োডিনযুক্ত লবণ ব্যবহার করুন। সর্বক্ষেত্রে বিট লবণ সম্পূর্ণরূপে এড়িয়ে চলুন।

►        প্রতিদিন রান্নায় যে লবণ ব্যবহার করা হয়ে থাকে তাতেই দেহের চাহিদা মেটে। গৃহিণীরা মাত্রাহীন লবণ দিয়ে রান্না যেন না করেন, সেদিকে খেয়াল রাখুন।

►        পাতে বাড়তি লবণ একদম নয়। খাবার টেবিলেও কোনো লবণদানি রাখবেন না।

►        চিপস, সস, চিজ, স্ন্যাকসজাতীয় খাবারে লবণ থাকে বেশি। এগুলো খাওয়ার সময় খেয়াল রাখুন; কম লবণযুক্ত খাবার নির্বাচন করুন।

►        শিশুদেরও বেশি লবণজাতীয় খাবার দেবেন না।

 

সতর্কতা

দৈনন্দিন খাবারের তালিকা থেকে লবণ পুরোপুরি বাদ দেওয়া যাবে না। কেননা লবণের অভাবে রক্তচাপ কমে যাওয়া, মাথা ঘোরা ছাড়াও নানা ধরনের শারীরিক বিপত্তি দেখা দিতে পারে। খেয়াল রাখতে হবে, যেন চাহিদার তুলনায় লবণের পরিমাণ বেশি না হয়।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ওয়েবসাইট অবলম্বনে

আতাউর রহমান কাবুল



সাতদিনের সেরা