kalerkantho

বুধবার । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৮ ডিসেম্বর ২০২১। ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

সংক্ষিপ্ত

পানিতে ডুবে তিন মাসে ৫০৯ শিশুর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চলতি বছর ফেব্রুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত এক থেকে ১০ বছর বয়সী ৩৮টি শিশু মারা গেছে। অন্যদিকে গত জুন থেকে আগস্ট এই তিন মাসে দেশে পানিতে ডুবে মারা গেছে ৫০৯টি শিশু। বাংলাদেশে গড়ে প্রতিদিন ৪০টি শিশু পানিতে ডুবে মারা যায়। বছরে ১৯ হাজার। বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার দিবস উপলক্ষে সেন্টার ফর ইনজুরি প্রিভেনশন অ্যান্ড রিসার্চ বাংলাদেশ (সিআইপিআরবি) ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমি আয়োজিত এক আলোচনাসভায় এই তথ্য জানানো হয়। গতকাল শনিবার এ আলোচনাসভায় সিআইপিআরবির ইন্টারভেনশন ম্যানেজার সাফকাত হোসেন জানান, বাংলাদেশের প্রাকৃতিক পরিবেশের পরিপ্রেক্ষিতে পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুপ্রবণ এলাকাগুলোতে কিভাবে শিশুমৃত্যু রোধ করা যায় গবেষণা করে সেই পদ্ধতি বের করেছেন সিআইপিআরবির গবেষকরা। এই পদ্ধতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন ও স্বীকৃতি পেয়েছে। গবেষণার আলোকে একটি নীতিমালাও প্রণয়ন করা হয়েছে, যেটি এখন অনুমোদনের অপেক্ষায়। দেশজুড়ে পানিতে ডুবে মৃত্যুর নীরব যে মহামারি চলছে, নীতিমালাটি অনুমোদনের পর বাস্তবায়ন করা গেলে তা কমিয়ে আনা যাবে। অনুষ্ঠানে আরো জানানো হয়, পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি বরিশাল বিভাগে। পটুয়াখালী ও বরগুনার তিন উপজেলায় ২০১৬ সাল থেকে ‘ভাসা’ নামের একটি প্রকল্প পরিচালনা করছে সিআইপিআরবি। এক থেকে পাঁচ বছর বয়সী শিশুদের প্রারম্ভিক বিকাশের জন্য ‘আঁচল’ ও ছয় থেকে ১০ বছর বয়সী শিশুদের সাঁতার শেখানোর কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। এই উদ্যোগ নেওয়ার পর প্রকল্প এলাকায় পানিতে ডুবে শিশুমৃত্যুর হার প্রায় ৫৩ শতাংশ কমেছে।



সাতদিনের সেরা