kalerkantho

সোমবার ।  ১৬ মে ২০২২ । ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩  

রংপুর সিটি মেয়রের কক্ষে ‘মিস ফায়ার’

ঘটনাস্থলে কিছু শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিল পিস্তল মালিকের থানায় জিডি

রংপুর অফিস   

৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২টা। একটি বেসরকারি সংস্থার আয়োজনে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে প্রতীকী মেয়রের দায়িত্ব পালনের অনুষ্ঠান চলছিল রংপুর সিটি করপোরেশনের মেয়রের কক্ষে। মেয়রসহ অন্তত ২০ জন উপস্থিত ছিল সেখানে। এ সময় ভেতরে হঠাৎ গুলির শব্দে আঁতকে ওঠে সবাই।

বিজ্ঞাপন

তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

পরে পুলিশ প্রশাসন জানায়, রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি এ কে এম মোজাম্মেল হকের পিস্তল থেকে ‘মিস ফায়ার’ হয়েছে। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে খোঁজ নিতে লোকজন সিটি করপোরেশনে ভিড় করে। ঘটনা খতিয়ে দেখতে ছুটে আসে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনী।

সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা জানান, তাঁর কক্ষে বেসরকারি সংস্থা প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল আয়োজিত ছায়া সংসদের কার্যক্রম হিসেবে প্রতীকী মেয়রের দায়িত্ব পালনের অনুষ্ঠান চলছিল। এ সময় রংপুর জেলা মোটর মালিক সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি এ কে এম মোজাম্মেল হক তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে সেখানে আসেন। কথা বলার এক পর্যায়ে মোজাম্মেল হক পকেট থেকে মোবাইল ফোন বের করতে গেলে তাঁর লাইসেন্স করা পিস্তল হাত থেকে মেঝেতে পড়ে যায়। এতে বিকট শব্দ হয়। তবে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। শব্দ হলেও কক্ষে গুলির কোনো চিহ্ন বা খোসা খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে এ কে এম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘পকেট থেকে মোবাইল বের করতে গিয়ে পিস্তল মাটিতে পড়ে যায়। অসাবধানতাবশত সেখানে একটা গুলি আটকে থাকায় তা বের হয়ে বিকট শব্দ হয়েছে। ’ এর বেশি বলতে রাজি হননি তিনি। তবে এ ঘটনায় রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালি থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তিনি। জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (ডিবি অ্যান্ড মিডিয়া) সাজ্জাদ হোসেন জানান, প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে, ওই সময় এ কে এম মোজাম্মেল হকের পিস্তল থেকে ‘মিস ফায়ার’ হয়েছে। যেহেতু আগ্নেয়াস্ত্রের বিষয়, সেহেতু নিয়ম অনুযায়ী এ ব্যাপারে থানায় একটি জিডি করেছেন মোজাম্মেল হক।



সাতদিনের সেরা