kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মেম্বারের ঘরে ককটেল বিস্ফোরণে আহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল ও কালকিনি (মাদারীপুর) প্রতিনিধি    

৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাদারীপুরের কালকিনিতে মন্নান মোল্লা নামের এক ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্যের বসতঘরে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটেছে। এতে ঘরটি বিধ্বস্ত এবং দুজন গুরুতর আহত হয়েছেন। ইউপি নির্বাচন ঘিরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গত সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার সিডিখান ইউনিয়নের মাথাভাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আহত ব্যক্তিরা হলেন ইয়ামিন বেপারী (৩৮) ও সুমন সিকদার (২৬)। আহতদের উদ্ধার করে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। তবে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে তাঁদের গতকাল মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মফিজুল ইসলাম জানান, দুজনের অবস্থা গুরুতর। হাত, পা, মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থান বোমার আঘাতে ক্ষতবিক্ষত হয়েছে। তাঁদের সার্জারি বিভাগে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিডিখান ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান চাঁনমিয়া শিকদার ও চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মিলন মিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিবাদ চলছে। এর জের ধরে চাঁনমিয়া সমর্থক ইউপির ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মন্নান মোল্লার বসতঘরে ককটেল তৈরি করার সময় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরিত হয়। এতে ঘরটির টিনের চালা ও বেড়া উড়ে যায়। আহত ইয়ামিন বেপারীর স্ত্রী শ্যামলী একই ইউপির সদস্য।

কালকিনি উপজেলার সিডিখান ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রাসেল সরদার বলেন, ‘বোমার শব্দ পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে দেখি বিভিন্ন স্থানে রক্ত পড়ে আছে; নৌকার মধ্যে দুজন আহত অবস্থায় পড়ে আছেন। পরে আমরা পুলিশকে সংবাদ দিয়ে তাঁদের হাসপাতালে পাঠিয়েছি। যে ঘরে বোমার বিস্ফোরণ হয়েছে, সেটি বর্তমান ইউপি সদস্যের ঘর এবং আহতরা বর্তমান চেয়ারম্যানের সমর্থক। ’

মাদারীপুর জেলা পুলিশ সুপার গোলম মোস্তফা রাসেল বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি যে সিডিখান এলাকায় ককটেল বানাতে গিয়ে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে দুজন আহত হয়েছে। এখানে দুটি গ্রুপ আছে। তাদেরই একটি গ্রুপ এই ককটেল বানিয়ে শক্তি প্রদর্শন করতে চেয়েছিল। যেহেতু তারা ককটেল বানাতে গিয়ে আহত হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক আইনে মামলা করা হবে। আর আমরা আজ থেকেই একটি কম্বিং অপারেশন চালিয়ে যাব। ’



সাতদিনের সেরা