kalerkantho

শনিবার ।  ২১ মে ২০২২ । ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩  

মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার যুবককে পিটিয়ে হত্যা

ছেলের হাতে বাবা খুন, আরেকজন আহত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম, কিশোরগঞ্জ ও ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

৩ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কিশোরগঞ্জের কটিয়াদীতে মাদকের টাকা না পেয়ে বাবা নিদান মিয়াকে (৫০) কুপিয়ে হত্যা করেছেন ছেলে হৃদয় মিয়া (২৬)। গত শুক্রবার রাত ১২টার দিকে পৌর এলাকার দড়িচরিয়াকোনা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত নিদান মিয়া পেশায় টমটমচালক ছিলেন। ঘটনার পর হৃদয়কে আটক করে পুলিশে দেয় স্থানীয় লোকজন।

বিজ্ঞাপন

কটিয়াদী মডেল থানার ওসি এস এম শাহাদত হোসেন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার হৃদয় তাঁর বাবাকে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ধারালো ছুরিটিও উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত নিদান মিয়ার আরেক ছেলে রতন মিয়া গতকাল শনিবার বাদী হয়ে কটিয়াদী মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে গত শুক্রবার মাদক সেবনের জন্য বাবা জাফরুল ইসলাম চৌধুরীর কাছে টাকা দাবি করেন তাঁর মাদকসেবী ছেলে। কিন্তু টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় বাবাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেন ছেলে শাখাওয়াত শাহরিয়ার চৌধুরী (২৭)। আহত বাবা জাফরুল ইসলাম চৌধুরী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রেস শাখার ডেপুটি রেজিস্ট্রার। এ ঘটনায় গতকাল শনিবার সকালে মামলার পরই শাহরিয়ারকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ব্যাপারে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, গ্রেপ্তার শাহরিয়ার প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বাবাকে মারধরের কথা স্বীকার করেছেন। পরে তাঁকে আদালতের মাধ্যমে করাগারে পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে পাবনার ঈশ্বরদীতে মাদকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় বিপ্লব হোসেন ফকির (২৩) নামের এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা করার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল শনিবার সকালে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। এর আগে ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়নের চররূপপুর জিগাতলা এলাকায় মারধরের ঘটনা ঘটে। নিহত বিপ্লব ফকির ওই এলাকার পান্না ফকিরের ছেলে। তিনি পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি ছিলেন। এ ঘটনায় একই এলাকার পলাশ ফকিরের দুই মাদকাসক্ত ছেলে অন্তর ফকির (২৩) ও শান্ত ফকিরকে (২০) আটক করেছে পুলিশ।

ঈশ্বরদী থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।



সাতদিনের সেরা