kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শুল্কমুক্ত মদ কেনার তথ্য যাচাই হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



শুল্কমুক্ত মদ কেনার তথ্য যাচাই হবে

কূটনীতিবিদ, উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার কর্মকর্তাসহ বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য বন্ড সুবিধায় শুল্কমুক্ত মদ আমদানির যাচাই করে দেখার বাধ্যবাধকতা জানিয়ে নির্দেশিকা জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহার বন্ধে গত ১৪ সেপ্টেম্বর সংস্থার শুল্ক, রপ্তানি ও বন্ড বিভাগের দ্বিতীয় সচিব মশিউর রহমানের স্বাক্ষরে এক নির্দেশিকা জারি করা হয়।

পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই নির্দেশিকা মেনে শুল্কমুক্ত মদ, সিগারেট ও মদজাতীয় পণ্য আমদানি করতে হবে। শুল্কমুক্ত সুবিধায় মদ, সিগারেট ও মদজাতীয় পণ্য কিনতে কী পরিমাণে অর্ডার দেওয়া হচ্ছে, তা থেকে কী পরিমাণে দেশে আনা হচ্ছে—সব তথ্য অনলাইনে খতিয়ে দেখতে হবে বলে নির্দেশিকায় বলা হয়েছে।

বন্ড সুবিধার আওতায় বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য শুল্কমুক্ত মদ, সিগারেটসহ বেশ কিছু পণ্য বিদেশ থেকে আমদানির সুযোগ রয়েছে, কিন্তু অনেক ডিপ্লোমেটিক বন্ডেড ওয়্যারহাউসের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা এই সুবিধার অপব্যবহার করে মিথ্যা তথ্য দিয়ে জাল কাগজপত্র বানিয়ে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি পণ্য আমদানি করে খোলাবাজারে বিক্রি করেন সরকারের রাজস্ব ক্ষতি করছে।

নতুন নির্দেশিকা অনুসারে, এখন থেকে ডিপ্লোমেটিক বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলোর আমদানি ও সরবরাহের ক্ষেত্রে পাস বই ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। হুইস্কি, বিয়ার, সিগারেট ও মদজাতীয় পণ্য কোন দেশের কোন কূটনীতিক ও সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তির জন্য আনা হচ্ছে, তা সংশ্লিষ্ট বন্ডেড ওয়্যারহাউস থেকে এনবিআরকে তথ্য-প্রমাণসহ জানাতে হবে। এরই মধ্যে শুল্কমুক্ত সুবিধায় এসব পণ্য কেনায় স্বচ্ছতা আনতে ‘ডিপ্লোমেটিক বন্ড অটোমেশন সিস্টেম’ তৈরি করেছে সংস্থাটি।

জারি করা নির্দেশিকা অনুযায়ী, এসব পণ্য কিনতে এবং সরবরাহে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, এনবিআর, কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট, ডিপ্লোমেটিক বন্ডেড ওয়্যার হাউসের তথ্য এনবিআর ডিপ্লোমেটিক বন্ড অটোমেশন সিস্টেম সফটওয়্যারের আওতায় খতিয়ে দেখতে পারবে।

এনবিআরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, নতুন এই নির্দেশিকা কার্যকর হলে বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য মদ, সিগারেট ও মদজাতীয় পণ্য কেনার ক্ষেত্রে শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহার কমবে।

ঢাকা কাস্টমস বন্ড কমিশনার কাজী মোস্তাফিজুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার করে শুল্কমুক্ত সুবিধায় মদ, সিগারেট ও মদজাতীয় পণ্য কেনায় স্বচ্ছতা আনা হয়েছে।

কূটনীতিবিদ, উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার কর্মকর্তাসহ বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য প্যাকেটজাত দুধ, শুকনা খাবারসহ বিভিন্ন ধরনের খাবার, পেস্ট, প্রসাধনসামগ্রী বন্ড সুবিধায় আমদানি করতে পারে। এসব পণ্য আমদানির ক্ষেত্রেও জাল কাগজপত্র তৈরি করা হয়। নতুন নির্দেশিকা অনুসারে এসব পণ্য কেনার তথ্যও এনবিআর অনলাইনে খতিয়ে দেখতে পারবে। 

কাস্টমস অ্যাক্টের ১৩ ধারা, বন্ডেড ওয়্যারহাউস লাইসেন্সিং বিধিমালা-২০০৮ অনুযায়ী, কূটনীতিক ও সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য হিসাবের বাইরে কোনো পণ্য আনা যাবে না। শুল্কমুক্ত পণ্য খোলাবাজারে বিক্রি করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে গণ্য করা হয়।

দেশের ছয় প্রতিষ্ঠানকে বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের জন্য বন্ড সুবিধার আওতায় পণ্য আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান হলো মেসার্স ন্যাশনাল ওয়্যারহাউস, মেসার্স সাব্বির ট্রেডার্স, মেসার্স ঢাকা ওয়্যারহাউস, মেসার্স টস বন্ড (প্রাইভেট) লিমিটেড, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন, মেসার্স এইচ কবীর অ্যান্ড কম্পানি লিমিটেড, মেসার্স ইস্টার্ন সার্ভিসেস ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস।

দেশে প্রতিবছর প্রায় ৫৫ থেকে ৬০ হাজার লিটার মদ শুল্কমুক্ত সুবিধায় ডিপ্লোমেটিক বন্ডেড ওয়্যারহাউসের মাধ্যমে আমদানি করা হয়। বৈধভাবে মদ আমদানিতে সাড়ে ৩০০ থেকে ৪০০ শতাংশ শুল্ককর ধার্য আছে। বিশেষ সুবিধায় আনা এসব মদের একটি বড় অংশ খোলাবাজারে কিংবা বারগুলোতে বিক্রির অভিযোগ দীর্ঘদিনের। অনেক বাসাবাড়ি ও ক্লাবেও এসব মদ বিক্রি করা হয়। ডিপ্লোমেটিক বন্ডেড হাউসের কিছু কর্মকর্তা-কর্মচারী এই অপকর্ম করছেন।

সম্প্রতি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে ইস্টার্ন ডিপ্লোমেটিক সার্ভিসেস লিমিটেডের বন্ডেড ওয়্যারহাউসের বাথরুমে অবৈধভাবে আমদানীকৃত ৩৮৬ বোতল বিদেশি মদ উদ্ধার করে। এ সময় একই স্থানে ৮৫ বোতল ফেনসিডিলও পাওয়া যায়। বন্ডেড ওয়্যারহাউসের দেওয়া শুল্কমুক্ত সুবিধার অপব্যবহার করে এসব পণ্য আনা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা