kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ২৮ জানুয়ারি ২০২২। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রেলস্টেশনের রেস্টহাউসে ছাত্রীকে ধর্ষণ

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জন্মদিনের অনুষ্ঠানে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে কিশোরগঞ্জ রেলস্টেশনের রেস্টহাউসে পঞ্চম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্ত মাহমুদুল হাসান সাগর (২৫) রেলস্টেশনের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী। গত সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে সাগর পলাতক।

বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ রেলওয়ে থানায় মামলা করা হলেও সাগরকে ধরতে পারেনি পুলিশ।

সাগর কিশোরগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব তারাপাশা মহল্লার আব্দুল জলিলের ছেলে এবং রেলস্টেশনের রেস্টহাউসের কেয়ারটেকার। এ ঘটনায় সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ধর্ষণের শিকার মেয়েটির বড় ভাই বাদী হয়ে সাগরকে একমাত্র আসামি করে রেলওয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন।

কিশোরগঞ্জ রেলওয়ে থানার ওসি মোহাম্মদ এমদাদুল হক জানান, স্কুলছাত্রীটি সাগরের আত্মীয়। বন্ধুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানের কথা বলে তাকে সন্ধ্যার পর কিশোরগঞ্জ রেলস্টেশনে নিয়ে যান সাগর। পরে তাকে কৌশলে স্টেশনের দ্বিতীয় তলায় ভিআইপি রেস্টহাউসে নিয়ে যান। সেখানে বিভিন্ন কথা বলে কালক্ষেপণ করতে থাকেন তিনি। এক পর্যায়ে রেস্টহাউসের দরজা বন্ধ করে দেন। পরে মেয়েটিকে হাত-পা বেঁধে বাথরুমে নিয়ে ধর্ষণ করেন সাগর। রাত ১০টার দিকে মেয়েটির কান্নাকাটি ও চিৎকার শুনে পুলিশ ও স্টেশনের লোকজন দরজা ভেঙে তাকে উদ্ধার করে। এ সময় সাগর জানালা দিয়ে পালিয়ে যান।

ওসি বলেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, অভিযুক্ত সাগর বিবাহিত। তিনি ভয়াবহ মাদকাসক্ত একটি ছেলে। তাঁর বিরুদ্ধে সারাক্ষণ মাদক গ্রহণের অভিযোগ করেছে স্থানীয় লোকজন।

সহকারী স্টেশন মাস্টার জয়নাল মিয়া জানান, অভিযুক্ত কর্মচারী মাহমুদুল হাসান সাগরকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি করা হয়েছে। তিনি বলেন, সন্ধ্যার পর মেয়েটির ভাইসহ কয়েকজন আত্মীয় স্টেশনে মেয়েটির খোঁজ নিতে যান। পরে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে তাঁরা নিশ্চিত হন, সাগর মেয়েটিকে নিয়ে স্টেশনে এসেছেন। কিন্তু কোথায় আছে তা নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছিল না। রাত ১০টার দিকে মেয়েটির চিৎকার শুনে তাকে রেস্টহাউস থেকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

রেলওয়ে থানা পুলিশ জানায়, চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নির্যাতনের শিকার স্কুলছাত্রীটিকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে আইনগত যেসব পদক্ষেপ নেওয়া দরকার তার সবই করা হয়েছে। মামলার আসামি সাগরকে ধরতে র‌্যাব, পিবিআইসহ জেলা পুলিশকে বার্তা দেওয়া হয়েছে।



সাতদিনের সেরা