kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

দুই শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ

শিশুসহ দুজন নিপীড়নের শিকার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দুই শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ

সাতক্ষীরার শ্যামনগর ও মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে দুই শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ এবং সিরাজগঞ্জের তাড়াশে শিশু ও ঝালকাঠির রাজাপুরে গৃহবধূকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব ঘটনায় দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ভুক্তভোগী কিশোরীর (১৭) মা গতকাল বুধবার শ্যামনগর থানায় মামলা করেন। পরে অভিযুক্ত হোসাইন আহমেদকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি গুমানতলী (শওকতনগর) গ্রামের হাফিজুর রহমান মোল্যার ছেলে। ভুক্তভোগী শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। মামলা সূত্রে জানা যায়, কিশোরী মেয়েকে প্রতিদিন বাসায় রেখে মা-বাবা ভিক্ষার জন্য বাইরে যান। এই সুযোগে হোসাইন বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রায়ই কিশোরীটিকে ধর্ষণ করতেন। এক পর্যায়ে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। পরে পারিবারিকভাবে কোনো সুরাহা না হওয়ায় মামলা করা হয়। কিশোরী বর্তমানে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা। শ্যামনগর থানার ওসি কাজী ওয়াহেদ মুর্শেদ বলেন, পুলিশ আসামিকে আদালতে পাঠিয়েছে।

কমলগঞ্জ উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের কুরমা চা-বাগানে গত রবিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটে। গতকাল দুপুরে কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী মানসিক ও শারীরিক প্রতিবন্ধী কিশোরীর ভাই। আসামি ধরম পাশী (৩০) কুরমা চা-বাগান এলাকার রামনুজ পাশীর ছেলে। অভিযোগ মতে, ধরম পাশী কিশোরীকে ঘর থেকে ডেকে ধলাই নদীর পারে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের জানালে তাঁরা ঘটনাটি সামাজিকভাবে দেখে দেওয়ার নাম করে তিন দিন পার করেন। কমলগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সোহেল রানা বলেন, কিশোরীকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রাজাপুর উপজেলার শুক্তাগড় ইউনিয়নের কেওতা গ্রামে গত মঙ্গলবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটে। রাতে ভুক্তভোগী গৃহবধূ রাজাপুর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করলে গ্রামের বাড়ি থেকে অভিযুক্ত সিদ্দিকুর রহমান সিকদার (৫০) গ্রেপ্তার হন। সিদ্দিকুর রহমান শুক্তাগড় ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং কেওতা গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলী সিকদারের ছেলে। রাজাপুর থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, গতকাল আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

তাড়াশ উপজেলার নওগাঁ ইউনিয়নের আলোকদিয়ার গ্রামে গত শুক্রবার দুপুরে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে সোমবার সিরাজগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২-এ মামলা করেন শিশুটির বাবা। আসামি আব্দুল মমিন (১৯) আলোকদিয়ারের আলম সরকারে ছেলে।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র ঝালকাঠি, রাজাপুর, কমলগঞ্জ, শ্যামনগর ও তাড়াশ-রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি।]



সাতদিনের সেরা