kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

‘বিয়েপাগল’ চিকিৎসক

দোহার-নবাবগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আরিফুর রহমান। পেশায় এমবিবিএস চিকিৎসক। ৪৫ বছর বয়সী এই চিকিৎসক নিজেকে পরিচয় দেন অবিবাহিত হিসেবে। নিজের বিয়ে লুকিয়ে এরই মধ্যে সেরেছেন একে একে তিনটি বিয়ে। তবে গত শুক্রবার রাতে ১৩ বছরের এক কিশোরীকে বিয়ে করতে গিয়ে ধরা পড়েন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর হাতে। ঘটনাটি ঘটেছে ঢাকার দোহারের সুতারপাড়া ইউনিয়নের ঘাড়মোড়া এলাকায়।

দোহার থানার ওসি (তদন্ত) মাসুদুর রহমান জানান, শুক্রবার রাতে ঘাড়মোড়া এলাকায় বাল্যবিয়ে হচ্ছে—খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে আটক করে বর ডা. আরিফুর রহমানকে। পরে ঘটনাস্থলে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ডা. আরিফুরকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এফ এম ফিরোজ মাহমুদ। এ সময় কনের বাবাকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেওয়া হয়। গতকাল শনিবার দুপুরে কারাগারে পাঠানো হয়েছে ওই চিকিৎসককে।

আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে ডা. আরিফুর রহমান পুলিশকে জানান, তিনি ২০০৬ সালে ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে এমবিবিএস পাস করেন। তিনি বরিশাল সদর উপজেলার মো. সিয়ামের ছেলে।

জিজ্ঞাসাবাদেই বের হয়ে আসে ওই চিকিৎসকের আরো তিনটি বিয়ের কথা। পুলিশের কাছে নিজেই স্বীকার করেন এরই মধ্যে বরিশালে দুটি এবং দোহারে একটি বিয়ে করেছেন আরিফুর। তবে এক বিয়ের কথা আরেক স্ত্রীকে জানাননি তিনি।



সাতদিনের সেরা