kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

তাহিরপুরে গৃহবধূ ধর্ষণ

স্বাস্থ্য প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান হাজং সংগঠনের

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুনামগঞ্জের তাহিরপুর সীমান্তে হাজং গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় স্বাস্থ্য প্রতিবেদন বদলে দেওয়ার অভিযোগ করেছে বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠন ও বাংলাদেশ হাজং ছাত্র সংগঠন। গতকাল রবিবার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো ধর্ষিতার মেডিক্যাল রিপোর্ট প্রত্যাখ্যান করে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নিতে এই কাজ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। তারা অভিযুক্ত আব্দুর রশিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে। অভিযোগ উঠেছে, গত ১৪ আগস্ট তাহিরপুর উপজেলার রাজাই গ্রামে সীমান্ত নদীতে গোসল করার সময় এক হাজং গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন একই গ্রামের আব্দুর রশিদ। এ ঘটনায় ওই দিনই ভিকটিমের মা থানায় ধর্ষণ মামলা করেন। পুলিশ আব্দুর রশিদকে আটক করে কারাগারে পাঠায়। আর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পরদিন ধর্ষিতাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাংলাদেশ জাতীয় হাজং সংগঠনের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক পল্টন হাজং ও বাংলাদেশ হাজং ছাত্র সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আশীষ হাজং পাঠানো বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তাহিরপুর থানার সাব-ইন্সপেক্টর আবু বকর সিদ্দিক ঘটনার দিন ভিকটিমকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য না পাঠিয়ে পরদিন সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে মেডিক্যাল পরীক্ষা করান। স্বাস্থ্য পরীক্ষার আগেই ধর্ষিতা অজ্ঞতাবশত গোসল করায় এবং বৃষ্টির সময় ধর্ষণের ঘটনা ঘটায় আলামত নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষার ১৬ দিন পর গত ১ সেপ্টেম্বর জানানো হয় যে মেডিক্যাল পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত মেলেনি। এই স্বাস্থ্য প্রতিবেদনকে সন্দেহজনক ও ভুল উল্লেখ করে তা প্রত্যাখ্যান করে সংগঠনটি।

 



সাতদিনের সেরা