kalerkantho

রবিবার । ৯ মাঘ ১৪২৮। ২৩ জানুয়ারি ২০২২। ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ফতুল্লায় মসজিদে বিস্ফোরণের এক বছর আজ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নারায়ণগঞ্জের পশ্চিম তল্লায় মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনার এক বছর আজ। গত বছরের ৪ সেপ্টেম্বর এশার নামাজের সময় ভয়াবহ বিস্ফোরণে মসজিদের ৩৭ মুসল্লি দগ্ধ হন। তাঁদের মধ্যে মৃত্যু হয় ইমাম-মুয়াজ্জিনসহ ৩৪ জনের।

বিস্ফোরণের ঘটনায় সিআইডি গত ৩১ ডিসেম্বর ২৯ জনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করে।

বিজ্ঞাপন

পরে সম্পূরক চার্জশিটে তিতাসের আট কর্মকর্তা-কর্মচারীকে অন্তর্ভুক্ত করতে চিঠি দেওয়া হয়। কিন্তু তাতে সাড়া দেয়নি তিতাসের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ। ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চায় এলাকাবাসী ও নিহতদের স্বজনরা। এদিকে এক বছর পর নামাজের জন্য মসজিদটি খুলে দিয়েছে জেলা প্রশাসন। ওই দিন বায়তুস সালাত জামে মসজিদে ফরজ নামাজ শেষে সুন্নত ও নফল এবাদত করছিলেন মুসল্লিরা। এর মধ্যে ত্রুটিপূর্ণ গ্যাসলাইনের কারণে আচমকা সেখানে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। এলাকাবাসী ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ৩৭ জনকে হাসপাতালে নেন। তাঁদের মধ্যে ৩৪ জনের মৃত্যু হয়।

নিহত ইমাম আবদুল মালেকের ছোট ছেলে ফাহিমুল ইসলাম বলেন, ‘বাবাই আমাদের পরিবারের আয়-রোজগার করতেন। তিনি মারা যাওয়ার পর বড় ভাই সংসারের হাল ধরেছেন। ’

নিহত মোহাম্মদ আলী মাস্টারের বড় ছেলে মো. রাসেল বলেন, বিস্ফোরণের পর জেলা প্রশাসন, তিতাস, বিদ্যুৎ বিভাগ, সিটি করপোরেশনসহ পাঁচটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত প্রতিবেদনে যাদের গাফিলতি পাওয়া গেছে, তাদের বিরুদ্ধে মামলার বিচারকাজ চলছে ধীরগতিতে।

এ ঘটনায় প্রথমে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেন একজন এসআই। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় সিআইডি। গ্রেপ্তার করা হয় তিতাস গ্যাসের আট কর্মকর্তা-কর্মচারী, মসজিদ কমিটির সভাপতি, ডিপিডিসির একজন মিটার রিডার ও দুজন স্থানীয় ইলেকট্রিশিয়ানকে। তাঁরা সবাই জামিনে আছেন।



সাতদিনের সেরা