kalerkantho

বুধবার । ১১ কার্তিক ১৪২৮। ২৭ অক্টোবর ২০২১। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ শুরু

মাতৃদুগ্ধ পানে বাংলাদেশের অর্জন অনেক বেশি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্বব্যাপী ৪৩ শতাংশ নবজাতক জন্মের এক ঘণ্টার মধ্যে মায়ের দুধ পান করে থাকে এবং ৪১ শতাংশ শিশুকে পূর্ণ ছয় মাস বয়স পর্যন্ত শুধু মায়ের দুধ পান করানো হয়। বাংলাদেশে এই হার যথাক্রমে ৬৯ শতাংশ এবং ৬৫ শতাংশ। শিশুকে ২৪ মাস বয়স পর্যন্ত মায়ের দুধ পান করানোর হার এখন ৮৭ শতাংশ। যদিও ২০২৫ সালের মধ্যে বিশ্বব্যাপী শিশুর ছয় মাস বয়স পর্যন্ত শুধু মায়ের দুধ পান করানোর হার ৫০ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে এবং বাংলাদেশ এরই মধ্যে তা অর্জন করেছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক গতকাল সোমবার এ তথ্য জানান। জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠানের জাতীয় পুষ্টি সেবার মাধ্যমে সপ্তাহব্যাপী মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উদ্বোধন উপলক্ষে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন মন্ত্রী। আগামী ৭ আগস্ট মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ পালিত হবে। অনুষ্ঠানে মন্ত্রী জানান, দেশে প্রসূতি ও দুগ্ধদানকারী মায়েদের করোনার টিকা দেওয়ার ব্যাপারে শিগগিরই ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আসবে। তিনি জানান, জন্মের এক ঘণ্টার মধ্যে মায়ের দুধ পান করালে শিশুমৃত্যুর হার শতকরা ৩১ ভাগ কমে যায়। আর ছয় মাস বয়স পর্যন্ত শুধু মায়ের দুধ পান করালে (এক ফোঁটা পানিও নয়) শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি আরো ১৩ শতাংশ কমে যায়। তাই শিশুর মৃত্যুহার রোধে এবং শারীরিক ও মানসিক বিকাশে জন্মের এক ঘণ্টার মধ্যেই মায়ের দুধ পান, ছয় মাস বয়স পর্যন্ত শুধু মায়ের দুধ পান এবং পূর্ণ ছয় মাস বয়সের পর থেকে দুই বছর বয়স পর্যন্ত ঘরে তৈরি বাড়তি খাবারের পাশাপাশি মায়ের দুধ চালিয়ে যেতে হবে।



সাতদিনের সেরা