kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৯ ডিসেম্বর ২০২১। ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

ঢাকা মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি

উত্তরের দায়িত্বে আমান দক্ষিণে আবদুস সালাম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ সাংগঠনিক শাখা ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। দুই কমিটিতেই শীর্ষ নেতৃত্বে আনা হয়েছে মহানগরের বাইরের নেতাদের। সর্বশেষ জাতীয় নির্বাচনে উত্তরের আসন ঢাকা-১৩ থেকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া আবদুস সালামকে দক্ষিণের আহ্বায়ক করা হয়েছে। এর বাইরে এই শাখার সদস্যসচিব রফিকুল আলম মজনু, উত্তরের আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমান ও সদস্যসচিব আমিনুল হক ঢাকা মহানগর বিএনপির কোনো পদে ছিলেন না। শীর্ষ নেতৃত্ব থেকে নগর নেতাদের বাদ দেওয়ায় কমিটি নিয়ে ক্ষোভ আছে নেতাকর্মীদের মধ্যে। 

গতকাল সোমবার বিকেলে আমানের নেতৃত্বে ঢাকা মহানগর উত্তরে ৪৭ সদস্যের এবং সালামের নেতৃত্বে দক্ষিণে ৪৯ সদস্যের কমিটি ঘোষণা করা হয়। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরের চলতি দায়িত্বে থাকা কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান সালেহ জানান, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কমিটি অনুমোদন দিয়েছেন। আহ্বায়ক কমিটিকে কাউন্সিলের মাধ্যমে পরবর্তী কমিটি করার সময়সীমা বেঁধে দেওয়ার নিয়ম থাকলেও এ ক্ষেত্রে তা করা হয়নি।

ঢাকা উত্তরের কমিটিতে ১০ জনকে যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ৩৫ জনকে সদস্য করা হয়েছে। আর দক্ষিণে ১২ জন যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ৩৫ জন সদস্য রয়েছেন। গত ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে দলের দুই প্রার্থী তাবিথ আউয়াল (উত্তর) ও ইশরাক হোসেনকে (দক্ষিণ) কমিটিতে ১ নম্বর সদস্য হিসেবে রাখা হয়েছে।

অভিযোগ উঠেছে, কমিটিতে পদ দেওয়ার ক্ষেত্রে যোগ্যতা ও ত্যাগের মূল্যায়ন করা হয়নি। আগের কমিটির অনেককে বাদ দেওয়া হয়েছে। আগের কমিটির উত্তরে এম এ কাইয়ুম এবং দক্ষিণে হাবিব-উন-নবী খান সোহেল সভাপতি ছিলেন। এবারের কমিটিতে তাঁদের রাখা হবে না বলে রবিবার রাতেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আগের কমিটির উত্তরের সিনিয়র সহসভপতি বজলুল বাসিত আঞ্জু, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার, যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিবকে কমিটিতে রাখা হয়নি। উত্তরের সাধারণ সম্পাদক করোনাভাইরাস সংক্রমণে মারা যাওয়ার পর ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন আবদুল আলী নকী। তাঁকে প্রথম যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও ঢাকা-১০ আসনে উপনির্বাচনে অংশ নেওয়া শেখ রবিউল আলম রবি বাদ পড়েছেন। ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকারসহ প্রয়াত নাসিরউদ্দিন পিন্টুর অনুসারী হিসেবে পরিচিতরাও নেই আহ্বায়ক কমিটিতে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উত্তরের আহ্বায়ক হিসেবে বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানির নাম থাকলেও শেষ মুহূর্তে তাতে পরিবর্তন আসে। আবদুস সালামকে দক্ষিণের আহ্বায়ক করায় এ্যানিকে বাদ দিয়ে আমানকে উত্তরের আহ্বায়ক করা হয়।

সূত্র বলছে, ঢাকা মহানগরের প্রভাবশালী দুই নেতা স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার অনুসারীদের সমন্বয় করে দক্ষিণের নতুন কমিটি করা হয়েছে। দক্ষিণের আহ্বায়ক সালাম প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকার অনুসারী। কমিটিতে খোকার অনুসারীর সংখ্যাই বেশি। আর মির্জা আব্বাসের অনুসারী রফিকুল আলম মজনুকে দক্ষিণের সদস্যসচিব করা হয়েছে। ছাত্রদলের কয়েকজনকে মহানগর বিএনপিতে আনা হয়েছে। এর মধ্যে ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি থেকে বহিষ্কৃত নাদিয়া পাঠান পাপনকে সদস্য করা হয়েছে। এ ছাড়া ছাত্রদলের সাবেক নেত্রী আরিফা সুলতানা রুমাকেও সদস্য করা হয়েছে। 

গত কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক তানভীর আহমেদ রবিনকে দক্ষিণের ৯ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়েছে। তাঁর মতো একজন নেতাকে এতটা পেছনে রাখায় তাঁর অনুসারীরা ক্ষুব্ধ।



সাতদিনের সেরা