kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ কার্তিক ১৪২৮। ২৬ অক্টোবর ২০২১। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সরকার দেশকে ‘দুর্নীতিতে পরিপূর্ণ’ করেছে : ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩১ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আজকে ব্যাংকিং সেক্টরকে, শেয়ার মার্কেটকে ধ্বংস করে দিয়েছে সরকার। মানি লন্ডারিং এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে, এখন সরকার নিজে বলছে, এটা নিয়ন্ত্রণ করার দরকার, দুদক চেষ্টা করছে। দুর্ভাগ্য আমাদের, এই কয়েক দিন আগে দুদকের সাবেক এক চেয়ারম্যানের নামেও দুর্নীতির অভিযোগ চলে এসেছে। গোটা দেশ এখন দুর্নীতিতে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে এবং আওয়ামী লীগের সরকার আজকে সেটা তৈরি করেছে।’

গতকাল শুক্রবার বিকেলে বিএনপির স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী জাতীয় উদযাপন কমিটির উদ্যোগে বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার অংশ হিসেবে ‘ব্যক্তি খাত বিকাশে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও মুক্তবাজার অর্থনীতি’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল আলোচনাসভায় ফখরুল এ কথা বলেন।

ফখরুল বলেন, ‘সাউথ-ইস্ট এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল—এমন একটা মিথ তৈরি করতে চায় সরকার। কিন্তু বাস্তব অবস্থাটা হচ্ছে, এখন এ দেশে প্রায় ছয় কোটি লোক দারিদ্র্যসীমার নিচে। আজকে করোনার যে আঘাত এসেছে সেই আঘাত সহ্য করতে পারছে না বাংলাদেশ, অর্থনীতি সহ্য করতে পারছে না, আরো দুই কোটি লোক নতুন করে দরিদ্র হয়ে গেছে। দেশে কিছু লোক লুট এবং দুর্নীতির মধ্য দিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক হয়ে যাচ্ছে।’

প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের অর্থনৈতিক সংস্কারের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান বাংলাদেশকে একটি পটেনশিয়াল ইকোনমির দেশ হিসেবে, একটি সম্ভাবনাময় জাতি নির্মাণের সুযোগ সৃষ্টি করেছিলেন। বর্তমান সরকার অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশকে একটি পরনির্ভরশীল অর্থনীতিতে পরিণত করতে চাচ্ছে।

আলোচনাসভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। জাতীয় উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে ও সদস্যসচিব আবদুস সালামের সঞ্চালনায় আলোচনাসভায় বক্তব্য দেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, স্থায়ী কমিটির সদস্য জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক মাহবুব উল্লাহ, অধ্যাপক খন্দকার মোস্তাহিদুর রহমান বক্তব্য দেন।



সাতদিনের সেরা