kalerkantho

বুধবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৮। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৪ সফর ১৪৪৩

স্কুলছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগ

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেপ্তার আরো ১

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নোয়াখালীতে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ছাড়া হবিগঞ্জ জেলায় এক নারীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় আরো এক আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নোয়াখালী প্রতিনিধি জানান, নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার পরকোর্ট ইউনিয়নে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৬) ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক ফারাবি আহম্মেদ ফয়েজকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর পরিবারকে হুমকি দেওয়া এবং সালিসি বৈঠকের নামে সময়ক্ষেপণের অভিযোগে ফারাবির বাবা রুহুল আমিন ও ভাইকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গতকাল ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে ফারাবিসহ তিনজনকে আসামি করে চাটখিল থানায় একটি মামলা করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী পঞ্চম শ্রেণি থেকে ফারাবির কাছে পড়ত। দুই বছর ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ফারাবি তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। সম্প্রতি স্থানীয় সালিসে ভুক্তভোগীকে বিয়ের কথা দিলেও পরে হুমকি দিতে থাকে ফারাবির পরিবার।

চাটখিল থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানান, গতকাল সকালে ছাত্রীর বাবা তিনজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বিচারিক আদালতে পাঠালে আদালত তাঁদের জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠান। ভুক্তভোগীর মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জে এক নারীকে (২৩) ধর্ষণের ঘটনায় মাহফুজ মিয়া (৩৩) নামের আরেক আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। গত মঙ্গলবার গভীর রাতে মাধবপুরের গ্যাস ফিল্ড এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। মাহফুজ শায়েস্তাগঞ্জের অলিপুর গ্রামের মোস্তফা মিয়ার ছেলে। গতকাল বুধবার র‌্যাব-৯ সিলেটের মিডিয়া অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার সৌমেন মজুমদার জানান, মাহফুজকে শায়েস্তাগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

এর আগে ওই ধর্ষণ মামলার ছয় আসামির চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তাঁরা হচ্ছেন—হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার জগদীশপুর গ্রামের হাজি জাফর আলীর ছেলে সোহাগ, সুরাবই গ্রামের লিচু মিয়ার ছেলে নাইম মিয়া (৩০), লাখাই উপজেলার বুল্লা বাজারের সাবাজ মিয়া (৩২) ও সুরাবই গ্রামের শাহ আলম।



সাতদিনের সেরা