kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

ধর্ষণের পর আত্মহনন

অবশেষে পেকুয়ায় তিন বখাটের নামে মামলা

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রনিনিধি   

২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কক্সবাজারের পেকুয়ার রাজাখালীতে অষ্টম শ্রেণির মাদরাসা শিক্ষার্থীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও তার আত্মহননের ঘটনায় অবশেষে তিন বখাটের বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণ করেছে থানা পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে ভুক্তভোগীর বাবা বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে এজাহার জমা দিলে তা মামলা হিসেবে রুজু করা হয়। এর আগে থানায় এজাহার দেওয়া হলেও তা ফিরিয়ে দেওয়া হয়। এরপর এ নিয়ে তদন্তে নামেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তারপর নতুন এজাহারকে মামলা হিসেবে রুজু করা হলো।

মামলার আসামিরা হলেন চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার ছনুয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের হলুরঘাট ওয়াইজপাড়ার মকসুদ আহমদের ছেলে আবুল কাশেম (২০), পেকুয়ার রাজাখালী ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের মিয়ারপাড়ার মৃত আবুল হোসেন প্রকাশ বাদশার ছেলে আলমগীর (২২) ও হাজিরপাড়ার নুরুল হকের ছেলে রবিউল আলম (১৯)।

মামলার বাদী বলেন, ‘আমার সন্তানের ওপর যে পাশবিক ঘটনা ঘটেছে, সেসব অভিযোগে নতুন করে মামলা নেওয়ায় আমি পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞ। সেবামূলক ও পেশাদারিমূলক আচরণে পুলিশের প্রতি আমাদের আস্থা অনেক গুণ বেড়ে গেল।’

গত শুক্রবার গভীর রাতে ওই মাদরাসা শিক্ষার্থীকে বাড়ির জানালা ভেঙে তুলে নিয়ে যান তিন বখাটে। এ সময় পাশের রুমে থাকা বড়ভাইকে দরজায় ছিটকিনি দিয়ে আটকে রাখা হয়। তারপর ওই ছাত্রীকে পাশের পুকুরের টংঘরে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করা হয়। এ ঘটনার পর বিষ পান করে আত্মহননের পথ বেছে নেয় ভুক্তভোগী।



সাতদিনের সেরা