kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মহামারি মোকাবেলা

বাম দলগুলোর গুরুত্ব অক্সিজেন সরবরাহে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মহামারি মোকাবেলায় বিনা মূলে অক্সিজেন সিলিন্ডারসহ স্বাস্থ্যসেবাসামগ্রী সরবরাহে গুরুত্ব দিচ্ছে বামপন্থী দল ও তাদের সহযোগী সংগঠনগুলো। ঈদ সামনে রেখে দুস্থদের মধ্যে খাদ্যসামগ্রীও বিতরণ করছে তারা।

বামপন্থী দলগুলোর শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, প্রত্যন্ত এলাকায় রোগীরা যাতে অক্সিজেনসংকটে না পড়ে, সে জন্য জেলায় জেলায় অক্সিজেন ব্যাংক গড়ে তোলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। ঢাকা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, খুলনাসহ বিভিন্ন শহরে এরই মধ্যে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টিসহ অন্যান্য দলের পক্ষ থেকে অক্সিজেন সরবরাহ কার্যক্রম নেওয়া হয়েছে। খবর পেলেই সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবকরা বিনা মূল্যে রোগীর কাছে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিচ্ছেন। বিভিন্ন এলাকায় বিনা মূল্যে অ্যাম্বুল্যান্সসেবাও চালু হয়েছে। মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণসহ সচেতনতামূলক নানা কার্যক্রমও চলছে। 

বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ও বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা বজলুর রশীদ ফিরোজ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাম দলগুলো সীমিত সাধ্য নিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। আগামী দিনে করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে। তাই ঈদ সামনে রেখে ব্যাপক খাদ্যসামগ্রী বিতরণের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। জোটভুক্ত দলগুলো স্ব-স্ব উদ্যোগে এই কার্যক্রম পরিচালনা করছে।’

সিপিবি সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘করোনায় মানুষ অক্সিজেন নিয়ে সবচেয়ে সংকটে আছে। পার্টির পক্ষ থেকে সারা দেশে অক্সিজেন সরবরাহ কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। জনগণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির কার্যক্রম চলছে। রাজধানীসহ সারা দেশে মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণের কার্যক্রম চলছে। যারা খাদ্যসংকটে পড়ছে, তাদের বাজার পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে। ঈদের আগে চাল-ডাল, তেল-লবণ-সেমাইসহ খাদ্যসামগ্রী বিতরণের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।’

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘নির্দিষ্ট এলাকায় ও সামান্য কিছু মানুষের মধ্যে এসব ত্রাণ কার্যক্রম চলছে। এর মাধ্যমে বিশাল জনগোষ্ঠীর চাহিদা মেটানো সম্ভব নয়। তাই করোনা সংকটকালে খাদ্যসামগ্রী সরবরাহে সরকারকে পরিকল্পিত পদক্ষেপ নিতে হবে।’

এদিকে রাজধানীর পুরানা পল্টনে মুক্তি ভবনের নিচে গত ৬ এপ্রিল চালু হয় ‘শ্রমজীবী ক্যান্টিন’। বামপস্থী সংগঠন ছাত্র ইউনিয়ন ও যুব ইউনিয়ন পরিচালিত ওই ক্যান্টিন রাজধানীর পাশাপাশি জেলা শহরেও চালু হয়েছে। আর বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) তত্ত্বাবধানে গত ১৩ এপ্রিল রাজধানীতে কমিউনিটি কিচেনের কার্যক্রম শুরু হয়।



সাতদিনের সেরা