kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ কার্তিক ১৪২৮। ২৬ অক্টোবর ২০২১। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

করোনা বুথে ভিড় বাড়ছে

উপসর্গ দেখা দেওয়ার চার-পাঁচ দিন পর পরীক্ষায় অনেকে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ছয় মাসের অন্তঃসত্ত্বা পপি আক্তার। গায়ে হালকা জ্বর নিয়ে করোনা পরীক্ষা করাতে এসেছেন রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বুথে। গত মাসের ২২ তারিখ তিনি গর্ভকালীন রুটিন চেকআপের জন্য সবশেষ গিয়েছিলেন চিকিত্সকের কাছে। তবে আবারও চেকআপ করতে যাওয়ার আগেই তাঁর শরীরে দেখা দেয় করোনার লক্ষণ। ফলে তাঁর চিকিত্সক কভিড পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন। আর এ কারণেই রাজধানীর উত্তর বাড্ডার সাঁতারকুল এলাকার বাসিন্দা পপি এসেছেন করোনা পরীক্ষা করাতে।

পপি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমার জ্বরসহ করোনার অন্যান্য লক্ষণ আছে। আমার রেগুলার চেকআপের চিকিত্সক বলছেন করোনা টেস্ট করতে। এই রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পর তিনি আমাকে যেতে বলেছেন। তার আগে আমাকে দেখবেন না।’

পপির মতো তাসনুভা বেগমও এসেছেন এই বুথে করোনা পরীক্ষা করাতে। চার দিন ধরে জ্বর, হালকা কাশিসহ করোনার অন্যান্য উপসর্গ রয়েছে তাঁর শরীরে। গতকাল বুধবার বুথের সামনে দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, ‘আসলে আমার লক্ষণগুলো সব করোনার সঙ্গে মিলে যায়। গত চার দিনেও কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না। তাই সচেতনতা থেকেই এখানে টেস্ট করতে আসা।’

গতকাল সকাল ১১টার দিকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার এই বুথের সামনে দেখা যায়, করোনা টেস্ট করতে আসা ব্যক্তিদের বেশ লম্বা লাইন। হালকা বৃষ্টি পড়ছে। বৃষ্টি উপেক্ষা করেই একটি ছোট চালার নিচে চলছে করোনা পরীক্ষা কার্যক্রম। প্রতিদিন সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত এই বুথে চলে নমুনা সংগ্রহের কাজ। গড়ে প্রতিদিন ১২০ জনের নমুনা নেওয়া হয়। এখানে কভিড টেস্টে সহযোগিতা করছে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ব্র্যাক।

তথ্য নথিভুক্ত করতে করতে ব্র্যাককর্মী সাব্বির হোসেন বলেন, ‘এখন প্রতিদিন এখানে ১২০ থেকে ১৫০ জন আসে টেস্ট করাতে। আজ এখন পর্যন্ত এক শর বেশি মানুষকে পরীক্ষা করা হয়েছে। আগে বেশির ভাগ ব্যক্তিই কোনো না কোনো দরকারে এখানে করোনা টেস্ট করতে আসত। তবে এখন অনেকেই লক্ষণ দেখা দিলেই সচেতনতার জায়গা থেকে করোনা টেস্ট করতে আসছে।’

সকাল থেকে করোনা পরীক্ষা করাতে আসা ব্যক্তিদের ভিড় কেমন ছিল জানতে চাইলে ব্র্যাকের ল্যাব টেকনোলজিস্ট হাবিবুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গত বছর জুন থেকে এখানে করোনা টেস্ট চলছে। শুক্রবার ছাড়া সপ্তাহের অন্যান্য দিনে চলে নমুনা সংগ্রহের কাজ। গত কয়েক দিনে দেশে বেড়েছে করোনার সংক্রমণ। ফলে অন্যান্য বুথের মতো এই বুথেও বেড়েছে টেস্টের চাপ।’



সাতদিনের সেরা