kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

প্রকাশ্যে নুর-রাশেদের দ্বন্দ্ব, পরে মিটমাট

এক মাসের মধ্যে নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের সিদ্ধান্ত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৫ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রকাশ্যে নুর-রাশেদের দ্বন্দ্ব, পরে মিটমাট

কোটা সংস্কার আন্দোলনকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খান ও যুগ্ম আহ্বায়ক সাবেক ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরের দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এসেছে। নিজেকে সংগঠনের সমন্বয়ক দাবি করে শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে আহ্বায়ক রাশেদ ও যুগ্ম আহ্বায়ক সোহরাব হোসেনকে অব্যাহতি দেন নুর। এর পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টাবিজ্ঞপ্তি দিয়ে নুরের এই কার্যক্রমকে চরম অসাংগঠনিক বলে দাবি করেন রাশেদ। পরে অবশ্য দ্বন্দ্বের শান্তিপূর্ণ সমাধান হয়েছে বলে জানান তাঁরা।

গতকাল রবিবার ছাত্র অধিকার পরিষদের একাধিক নেতাকর্মীর সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে। একই সঙ্গে আগামী এক মাসের মধ্যে নতুন রাজনৈতিক দল গঠন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে বলেও জানান তাঁরা।

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুর নিজেকে বাংলাদেশ ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদের সমন্বয়ক উল্লেখ করে গত শনিবার একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেন। সেখানে সংগঠনের শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে আহ্বায়ক রাশেদ ও যুগ্ম আহ্বায়ক সোহরাবকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। একই সঙ্গে স্থায়ী বহিষ্কার কেন করা হবে না, সেই মর্মে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করার কথা জানানো হয়। এ ছাড়া আরেকটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত করে আগামী ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে নতুন করে কেন্দ্রীয় কমিটি করতে নির্বাচন কমিশন গঠন করার কথা জানানো হয়। কমিশনের প্রধান করা হয় পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. আবু হানিফকে। নুরের কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত করার এই ঘোষণাকে ‘চরম অসাংগঠনিক কার্যকলাপ’ আখ্যা দিয়ে গতকাল রবিবার সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেন ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক রাশেদ।

এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের উল্লিখিত নোটিশের আলোচনায় কেন্দ্রীয় কমিটির বেশির ভাগ নেতা অনুপস্থিত ছিলেন। তাই ওই সভায় সাংগঠনিক কোনো সিদ্ধান্ত হওয়ার এখতিয়ার কারো নেই। এ ছাড়া বাংলাদেশ ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদে ‘সমন্বয়ক’ কোনো পদই নেই।

এ পটভূমিতে গতকালই জরুরি সভায় বসেন পরিষদের নেতাকর্মীরা। প্রায় তিন ঘণ্টার আলোচনা শেষে সমাধানে আসেন তাঁরা। সভা শেষে আগামী এক মাসের মধ্যে ছাত্র অধিকার পরিষদ নতুন রাজনৈতিক দলের আত্মপ্রকাশ করবে বলে জানান সংগঠনটির নেতারা। রাজনৈতিক দল গঠন শেষে নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে। তত দিন রাশেদ আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করবেন।

এ বিষয়ে ডাকসুর সাবেক ভিপি ও ছাত্র অধিকার পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক নুর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সংগঠনে মতবিরোধ থাকবে, পাল্টাপাল্টি যুক্তিও থাকবে, এটাই সৌন্দর্য। আমাদের মধ্যে কিছু ভুল-বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছিল, যা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশ পেয়েছে। পরে আমরা আলোচনার মাধ্যমে তা সমাধান করে নিয়েছি।’

আর ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক রাশেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘নিজেদের মধ্যে ভুল-বোঝাবুঝির কারণেই এই ধরনের বিজ্ঞপ্তি। পরে আমাদের সিনিয়র নেতাদের উপস্থিতিতে আমরা সমাধান করেছি।’ আগামী এক মাসের মধ্যে নতুন রাজনৈতিক দল গঠন ও পরিষদের নতুন কাউন্সিল করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।



সাতদিনের সেরা