kalerkantho

শনিবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৭ নভেম্বর ২০২১। ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

স্বাস্থ্যের ডিজির সঙ্গে অ্যাটর্নি জেনারেলকে কথা বলার পরামর্শ

বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের টিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন পেতে উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশগামী শিক্ষার্থীরা যাতে অগ্রাধিকার পান এবং টিকা পাওয়ার অগ্রাধিকার তালিকায় (সুরক্ষা অ্যাপস) তাঁদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়, সে বিষয়টি নিয়ে অ্যাটর্নি জেনারেল বা সংশ্লিষ্ট রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের (ডিজি) সঙ্গে কথা বলতে বললেন হাইকোর্ট। বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল রবিবার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখতে বলেছেন। একই সঙ্গে বিদেশগামী শিক্ষার্থীদেরও টিকার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আবেদন করার পরামর্শ দিয়েছেন আদালত।

বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা অ্যাপে অপশন ও টিকায় অগ্রাধিকার চেয়ে জনস্বার্থে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম। তাঁর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত উল্লিখিত পরামর্শ দেন।

আদালত রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘সব ক্ষেত্রে আদেশ দেওয়ার প্রয়োজন নেই। এটা নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজির সঙ্গে কথা বলুন।’ আদালত আরো বলেন, ‘বিদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনেক শিক্ষার্থীই টাকা দিয়ে ভর্তি হয়ে গেছে। আগস্ট-সেপ্টেম্বর থেকে তাদের সেশন শুরু হয়ে যাবে। এই শিক্ষার্থীদের কিভাবে টিকার ব্যবস্থা করা যায় অ্যাটর্নি জেনারেলকে এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে কথা বলতে বলবেন। আপনি নিজেও বলতে পারেন। সব কিছুতে তো অর্ডারের প্রয়োজন হয় না।’

এ সময় সংশ্লিষ্ট আদালতে দায়িত্বরত ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সমরেন্দ্র নাথ বিশ্বাস আদালতকে বলেন, ‘আজই (রবিবার) এ নিয়ে কথা বলব।’ 

পরে অ্যাডভোকেট শেখ মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘উচ্চশিক্ষার জন্য একজন শিক্ষার্থী কানাডায় যাবেন। সেপ্টেম্বর থেকে তাঁর ক্লাস শুরু হবে। বিদেশ যাওয়ার শর্ত হলো দুই ডোজ টিকা সম্পন্ন করে ১৪ দিন নিজ দেশে থাকতে হবে। পরে তিনি বিদেশ যেতে পারবেন। এখন টিকার জন্য সুরক্ষা অ্যাপে বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের জন্য কোনো অপশন নেই। এদিকে সময়ও শেষ হয়ে যাচ্ছে। আগস্টের ১৫ তারিখের মধ্যে তাঁকে বিদেশ যেতে হবে। তাই বিদেশগামী শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা অ্যাপে অপশন ও টিকায় অগ্রাধিকার চেয়ে জনস্বার্থে হাইকোর্টে আবেদন করেছি।’



সাতদিনের সেরা