kalerkantho

শুক্রবার । ৬ কার্তিক ১৪২৮। ২২ অক্টোবর ২০২১। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সংক্ষিপ্ত

সুন্দরগঞ্জে জনবলসংকটে স্বাস্থ্যসেবা ব্যাহত

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

৪ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ১৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ৬৬টি পদ শূন্য রয়েছে। ফলে এই উপজেলার চিকিৎসাসেবা কার্যক্রমও ভেঙে পড়েছে। বিশেষ করে ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র ও পরিবার পরিকল্পনা কল্যাণ কেন্দ্রগুলোতে আসা রোগীরা চিকিৎসাসেবা থেকে পুরোপুরি বঞ্চিত হচ্ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় স্বাস্থ্য বিভাগে সরকারিভাবে প্রদত্ত পদের সংখ্যা ২২০টি। এর মধ্যে কর্মরত রয়েছেন ১৫৪ জন। ফলে শূন্য রয়েছে ৬৬টি পদ। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চারজন জুনিয়র কনসালট্যান্ট, ১৫টি ইউনিয়নে একজন করে মেডিক্যাল অফিসার, ১০ জন উপসহকারী কমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার, স্বাস্থ্য পরিদর্শক, স্বাস্থ্য সহকারীসহ ৬৬ পদ এখন খালি পড়ে আছে। তা ছাড়া বিভিন্ন প্রশিক্ষণ ও করোনার কারণে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকছেন। ফলে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন এই এলাকার মানুষজন। তারাপুরের সমাজকর্মী যুগল চন্দ্র সরকার জানান, সুুন্দরগঞ্জ মূলত বিস্তীর্ণ চরাঞ্চল অধ্যুষিত এলাকা। আর্থিক সংকট ও যোগাযোগব্যবস্থার বেহাল দশার কারণে এখানকার মানুষ জেলা শহরে যেতে পারে না। এখানকার স্বাস্থ্যসেবার ভঙ্গুর অবস্থা নিয়ে প্রশাসনিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের কোনো মাথাব্যথা নেই। স্থানীয় শিক্ষক আবদুল মান্নান জানান, ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে পিয়নরাই ওষুধ বিতরণ করছেন। ছাপড়হাটী ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রে দীর্ঘদিন ধরে কোনো কর্মকর্তা নেই। সুুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আশরাফুজ্জামান সরকার বলেন, ইউনিয়ন উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে কিছুটা জনবল সংকট রয়েছে। তবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাসেবা ঠিকমতো চলছে।



সাতদিনের সেরা