kalerkantho

শনিবার । ১০ আশ্বিন ১৪২৮। ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৭ সফর ১৪৪৩

জেয়াদ আল মালুমের দাফন, গার্ড অব অনার দিলেন নারী এসি ল্যান্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জেয়াদ আল মালুমের দাফন, গার্ড অব অনার দিলেন নারী এসি ল্যান্ড

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট জেয়াদ আল মালুমকে গতকাল রবিবার বিকেলে ঢাকার মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। এর আগে দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে জানাজা শেষে গার্ড অব অনার প্রদানের মধ্য দিয়ে তাঁকে চিরবিদায় জানান আইনজীবীরা। এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এসি ল্যান্ড মারুফা সুলতানা খান হীরামনি গার্ড অব অনার দেন।

জেয়াদ আল মালুম গত শনিবার রাত পৌনে ১টায় ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি স্ত্রী অধ্যাপক ডা. সানিয়া তাহমিনা, দুই সন্তানসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, সাবেক মন্ত্রী আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু, অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র ব্যারিস্টার ফজলে নূর তাপস গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

জেয়াদ আল মালুম গত ২৫ মে রাতে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাঁকে শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হলে ২ জুন তাঁকে সিএমএইচে স্থানান্তর করা হয়। ২০১০ সালের ২৫ মার্চ আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গঠিত হলে রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনার জন্য জেয়াদ আল মালুম প্রসিকিউটর হিসেবে নিয়োগ পান। সেই থেকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি দায়িত্ব পালন করেন।

জানাজা ও গার্ড অব অনার

সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে জেয়াদ আল মালুমের জানাজায় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম, বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম, বিচারপতি মো. দিলীরুজ্জামান, অ্যাটর্নি জেনারেল, ডিএসসিসি মেয়রসহ অসংখ্য আইনজীবী, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সংগঠনের নেতারা অংশ নেন। পরে বিচারপতি, অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক ও বর্তমান নেতারা, আইনমন্ত্রীর পক্ষে যুগ্ম সচিব হাবিবুর রহমান, পুলিশ হেডকোয়ার্টারের পক্ষে এআইজি মাহফুজুর রহমান আল মামুন, কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় নেতারা, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নসহ আরো কয়েকটি সংগঠনের পক্ষে মরদেহে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

মৃত্যুবরণকারী মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মান জানাতে তাঁর কফিনে নারী প্রতিনিধিদের মাধ্যমে ‘গার্ড অব অনার’ না দেওয়ার বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির প্রস্তাবের বিষয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এর মধ্যে গতকাল জেয়াদ আল মালুমের কফিনে ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গার্ড অব অনার দিলেন এসি ল্যান্ড মারুফা সুলতানা খান হীরামনি।



সাতদিনের সেরা