kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

সংক্ষিপ্ত

‘টিকার ঘাটতিতে সংক্রমণ মোকাবেলায় বেগ পেতে হচ্ছে’

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, টিকার ঘাটতির কারণে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় বেগ পেতে হচ্ছে বাংলাদেশকে। ‘বেল্ট অ্যান্ড রোড কো-অপারেশন অন কম্ব্যাটিং দ্য প্যান্ডামিক ফর সাসটেইনেবল রিকভারি’ শীর্ষক এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের উচ্চ পর্যায়ের ভার্চুয়াল সম্মেলনে গত বুধবার রাতে তিনি এ কথা বলেন। চীনের স্টেট কাউন্সেলর ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইর সভাপতিত্বে এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ড. মোমেন বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ ও দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ মহামারির প্রথম ঢেউ সাফল্যের সঙ্গে মোকাবেলা করেছে। বাংলাদেশের মতো যেসব দেশের এই টিকা উৎপাদনের সক্ষমতা রয়েছে, তাদের তা উৎপাদনের অনুমতি প্রদান এবং উৎপাদনে সহায়তা করা উচিত।’ একজন মানুষও টিকা গ্রহণ থেকে যাতে বাদ না পড়ে সে জন্য কভিড-১৯ টিকাকে একটি বৈশ্বিক গণপণ্য হিসেবে ঘোষণা দেওয়ার আহবান জানান ড. মোমেন। এ ছাড়া ‘কোভ্যাক্স’কে শক্তিশালী করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) সঙ্গে উৎপাদনকারী দেশগুলোর সুদৃঢ় ও সুপরিকল্পিত পরামর্শের প্রস্তাব দেন তিনি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, ‘চীনের মতো দেশগুলো টিকা সরবরাহে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। এটি অত্যন্ত আশাপ্রদ একটি ব্যাপার।’ এদিকে বিভিন্ন সূত্রের বরাত দিয়ে গত বুধবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো খবর দিয়েছিল, আগামী জুলাই মাসের শেষ কিংবা আগস্ট মাসের শুরুর দিকে বাংলাদেশসহ প্রতিবেশী দেশগুলোতে টিকা রপ্তানি শুরু করতে পারে ভারত। তবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আনুষ্ঠানিকভাবে এ তথ্য নিশ্চিত করেনি।