kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

অনলাইন সংলাপ

করোনাকালে নারীর প্রতি সহিংসতা বেড়েছে

পারিবারিক সহিংসতার শিকার ৫৭.৪ শতাংশ নারী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাকালে নারীর প্রতি সহিংসতা বেড়েছে। অন্যান্য অপরাধের মধ্যে সাইবার অপরাধ বৃদ্ধি পেয়েছে, যার ৮০ শতাংশ ভুক্তভোগী নারী। এ ছাড়া করোনাকালে বাল্যবিবাহও বেড়ে ছয় গুণ।

গতকাল বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক সংস্থা কেএনএইচ জার্মানি এবং বেসরকারি সংগঠন সমাজকল্যাণ ও উন্নয়ন সংস্থার (স্কাস) একটি অনলাইন সংলাপে এসব কথা বলা হয়।

‘করোনাকালে নারীর জীবনমান ও জাতীয় বাজেট’ শীর্ষক এ সংলাপে মূল প্রবন্ধে বলা হয়, করোনাকালে পারিবারিক সহিংসতার শিকার ৫৭.৪ শতাংশ নারী। এই সময়ে ৯১ শতাংশ নারীর বাসায় কাজের চাপ বেড়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য অপরাধের মধ্যে সাইবার অপরাধ বৃদ্ধি পেয়েছে, যার ৮০ শতাংশই নারীর বিরুদ্ধে। এ ছাড়া করোনাকালে বাল্যবিবাহও বেড়ে ছয় গুণ।

সংলাপটির সভাপতিত্ব করেন স্কাস চেয়ারম্যান জেসমিন প্রেমা। সংলাপ সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক নিখিল ভদ্র। সংলাপে অংশ নেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট শামসুল হক টুকু, সংসদ সদস্য সৈয়দা রুবিনা আক্তার ও অ্যাডভোকেট গ্লোরিয়া ঝর্ণা সরকার, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক কাজী আ খ ম মহিউল ইসলাম, কেএনএইচ জার্মানির প্রতিনিধি মাটিলদা টিনা বৈদ্য, টিম অ্যাসোসিয়েটের টিম লিডার পুলক রাহা প্রমুখ।

শামসুল হক টুকু বলেন, নারীর জীবনমান উন্নয়নে সরকার নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। জাতীয় বাজেটে বেশ কিছু ইতিবাচক পদক্ষেপের কথাও বলা হয়েছে। এমনকি নারী ও শিশুদের জন্য বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। এর পরও নারীর ক্ষমতায়নে শিক্ষা ও সচেতনতা বাড়াতে হবে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে সরকারের অনেক উন্নয়ন কার্যক্রম আটকে আছে উল্লেখ করে সংসদ সদস্য রুবিনা আক্তার বলেন, নারী নির্যাতন বন্ধ ও বাল্যবিবাহ কমাতে সরকার কাজ করছে। নারীর ক্ষমতায়নেও উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। একাধিক আইন প্রণয়ন করা হয়েছে।

সম্প্রতি বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। বাজেটের নানা ইতিবাচক তুলে ধরা হয় সংলাপে। একই সঙ্গে নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে গৃহীত জাতীয় কর্মপরিকল্পনা ২০১৩-২৫ যথাযথ বাস্তবায়ন, নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নে তৃণমূলের নারীদের মূলধারার অর্থনৈতিক কার্যক্রমের সঙ্গে যুক্ত করা, গৃহস্থালি কাজের স্বীকৃতি প্রদান, নির্যাতিত নারীর বিচারপ্রাপ্তি নিশ্চিতকরণ এবং বাজেট বাস্তবায়নে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধকে অগ্রাধিকার দেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা