kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

সানমার ইয়াকুব টাওয়ার

অনুমোদন ছাড়া অংশ ভাঙছে সিডিএ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রাম নগরের মোগলটুলী এলাকায় সানমার ইয়াকুব টাওয়ার নির্মাণ করতে ১০ তলা ভবন নির্মাণের অনুমোদন নিয়েছিলেন ভবনের মালিক মো. জানে আলম। তবে তিনি নির্মাণ করেন ১৩ তলা। গতকাল বৃহস্পতিবার অনুমোদনবহির্ভূত ভবনের বাড়তি তলাগুলো ভাঙতে অভিযান চালায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। এতে নেতৃত্ব দেন সিডিএ স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল আলম।

সিডিএ সূত্র জানায়, ‘সামার হোল্ডিং’ নামের একটি আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সানমার ইয়াকুব টাওয়ার ভবনটি নির্মাণ করে। বাড়তি তিনতলা ভবন নির্মাণের বিষয়টি জানতে পেরে সিডিএ থেকে ভবনের মালিককে চিঠি পাঠান। এর পরিপ্রেক্ষিতে তিনি উল্টো সিডিএর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে মামলা করেন। আদালতে তিনি সিডিএ থেকে ১৩ তলা ভবন নির্মাণের জাল অনুমোদনপত্র দেন। পরে আদালতে জানে আলমের জালিয়াতির বিষয়টি প্রমাণিত হলে তাঁরই করা মামলায় আদালত তাঁকে দুই মাসের কারাদণ্ড ও ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেন। তিনি দুই মাস কারাদণ্ডও ভোগ করেন।

সিডিএর অথোরাইজড অফিসার-২ মো. হাসান বলেন, ‘আমরা ভবনটি ১০ তলা পর্যন্ত নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছিলাম। কিন্তু নিয়মবহির্ভূতভাবে প্রতিষ্ঠানটি ১৩ তলা নির্মাণ করেছে। চিঠি দিয়ে এ বিষয়ে আমরা সতর্ক করেছিলাম ভবনের মালিককে। এর পরও কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় নকশার বহির্ভূত অংশটুকু ভাঙা হচ্ছে।’

সিডিএ পেশকার ফয়েজ আহামদ জানান, অবৈধ তলাগুলো জানে আলম বিক্রিও করে দিয়েছেন। এ বিষয়ে চিঠি দিয়ে তাঁকে সতর্ক করলেও তাতে তিনি কান দেননি।

এ বিষয়ে জানতে সামার হোল্ডিংয়ের মালিক জানে আলমের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।