kalerkantho

সোমবার । ৫ আশ্বিন ১৪২৮। ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১২ সফর ১৪৪৩

আর্থিক খাতে অনিয়ম

দুই ডেপুটি গভর্নরসহ শীর্ষ ৫ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অনিয়ম-দুর্নীতি গোপন ও অর্থ কেলেঙ্কারিতে সহযোগিতার বিনিময়ে মোটা অঙ্কের মাসোহারা নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরীর বিরুদ্ধে। বর্তমান নির্বাহী পরিচালক শাহ আলমের বিরুদ্ধেও একই অভিযোগ। এ ছাড়া এই চক্রকে সহযোগিতা করেছেন সাবেক-বর্তমান আরো বেশ কয়েকজন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সাবেক দুই প্রভাবশালী ডেপুটি গভর্নরসহ (ডিজি) পাঁচ শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে এসংক্রান্তে গঠিত বাংলাদেশ ব্যাংকের তদন্ত কমিটি।

গতকাল মঙ্গলবার আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম-দুর্নীতি ধরতে গঠিত ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং (কারণ উদঘাটন) কমিটির প্রধান ডেপুটি গভর্নর এ কে এম সাজেদুর রহমান খান তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। সকাল ১১টা থেকে ধারাবাহিকভাবে বিকেল ৬টা পর্যন্ত চলে জিজ্ঞাসাবাদ। প্রথমে সাবেক ডিজি এস কে সুর চৌধুরী, এস এম মনিরুজ্জামান, এরপর সাবেক নির্বাহী পরিচালক ম. মাহফুজুর রহমান, শেখ আব্দুল্লাহ এবং বর্তমান নির্বাহী পরিচালক শাহ আলমকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে, তা সবই মিথ্যা। আমার যা বলার তা ফ্যাক্ট ফাইন্ডিং কমিটিকে বলেছি। এরপর সাবেক ডিজি এস এম মনিরুজ্জামানের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। প্রায় দুই ঘণ্টা চলে জিজ্ঞাসাবাদ। এরপর কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় প্রথমে কিছু বলতে রাজি না হলেও পরে বলেন, ‘কেন্দ্রীয় ব্যাংক আমাকে ডেকেছিল, তাই দেখা করতে এসেছি।’ কোন অভিযোগের ভিত্তিতে ডাকা হয়েছে—এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, অভিযোগের বিষয়ে তারাই (বাংলাদেশ ব্যাংক) ভালো জানে।

আর্থিক প্রতিষ্ঠানে অনিয়ম-দুর্নীতির সঙ্গে নিজের কোনো সম্পৃক্ততা ছিল না দাবি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক নির্বাহী পরিচালক ম. মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘ওই সময় আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের দায়িত্বে থাকায় আমাকে ডাকা হয়েছে। কিন্তু কোনো অনিয়মের সঙ্গে আমি জড়িত ছিলাম না।’