kalerkantho

সোমবার  । ১২ আশ্বিন ১৪২৮। ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৯ সফর ১৪৪৩

‘কারাগারের রোজনামচা’ ফরাসি সংস্করণে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৯ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘কারাগারের রোজনামচা’ ফরাসি সংস্করণে

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘কারাগারের রোজনামচা’ গ্রন্থের ফরাসি সংস্করণ ‘জুর্নাল দ্য প্রিজন’ প্রকাশিত হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে গত বৃহস্পতিবার রাতে প্যারিসে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে নিউ ইয়র্ক থেকে অনলাইনে যুক্ত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

রাষ্ট্রদূত কাজী ইমতিয়াজ হোসেন তাঁর শুভেচ্ছা বক্তব্যের শুরুতেই জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। রাষ্ট্রদূত আশা করেন, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক আদর্শ, তাঁর জীবনদর্শন সারা বিশ্বের ফরাসি ভাষাভাষী জনগোষ্ঠীর কাছে পৌঁছে দিতে এই বইটির অনুবাদ বিশেষ অবদান রাখবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় কমিটির মুখ্য সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে বলেন, মুজিববর্ষে ‘কারাগারের রোজনামচা’ ফরাসি ভাষায় অনুবাদকৃত গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনে এক নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আজ আমাদের মধ্যে নেই; কিন্তু তাঁর জীবনদর্শন আমাদের অনুপ্রেরণার প্রধান উৎস।’ তিনি মুজিববর্ষ উপলক্ষে দূতাবাসের নেওয়া পদক্ষেপগুলোর ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ জাতিসংঘের সব ভাষায় অনুবাদ, বঙ্গবন্ধুর নামে ইউনেসকোতে সৃজনশীল অর্থনীতিতে আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রবর্তন নিঃসন্দেহে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বিশ্বময় ছড়িয়ে দিতে বিশেষ অবদান রাখবে।

বিশিষ্ট ফরাসি লেখক, দার্শনিক ও চলচ্চিত্রকার বেহনাহহি লিভি বলেন, ‘এই বইয়ে আমি বঙ্গবন্ধুর কণ্ঠস্বর শুনতে পাই।’ এ উদ্যোগ তাঁকে ভীষণভাবে আবেগ আপ্লুত করেছে। তিনি তাঁর বক্তব্যে তিনটি বিশেষ দিক তুলে ধরেন। প্রথমত, তিনি ফ্রান্সে বসবাসরত শেষ প্রজন্মের মানুষ, যিনি বঙ্গবন্ধুকে দেখেছেন। তিনি বলেন, ‘এই গ্রন্থের মাধ্যমে একদিকে যেমন মিষ্টতার প্রকাশ অনুভব করতে পেরেছি, তেমনি দৃঢ়তাও ফুটে উঠেছে। তার ওপর যন্ত্রণার অনুভূতি যেমন প্রকাশ পেয়েছে, তেমনি ভবিষ্যতের আশাবাদও ব্যক্ত হয়েছে।’

বেহনাহহি লিভি বলেন, ‘এই গ্রন্থের মাধ্যমে জনমানুষের প্রতি বঙ্গবন্ধুর মমত্ববোধ আস্বাদন করতে পেরেছি। এটি স্থায়ীভাবে এই গ্রন্থে গ্রথিত হলো। বঙ্গবন্ধু তাঁর বইয়ে যেভাবে ফরাসি বিপ্লবের কথা বলেছেন, ফরাসি জনগোষ্ঠীর সাম্য, মৈত্রী, স্বাধীনতাকে সমর্থন করেছেন, সেই একইভাবে ১৯৭১ সালের অক্টোবর মাসে বিশিষ্ট ফরাসি দার্শনিক অঁন্দ্রে মার্লোও বাংলাদেশের স্বাধিকার আন্দোলনে তাঁর সমর্থন প্রকাশ করেন।’ তিনি বলেন, ‘বর্তমান বাংলাদেশ সরকারের সাম্প্রতিক পরিপ্রেক্ষিত বিবেচনায় বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে, তার বীজ এই গ্রন্থে আমি দেখতে পাই।’



সাতদিনের সেরা