kalerkantho

শুক্রবার । ২ আশ্বিন ১৪২৮। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১। ৯ সফর ১৪৪৩

সারা বছর ক্লাস নিতে টিভি চ্যানেলের চিন্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়ার পর সরাসরি উপস্থিতিতে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সবাইকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে টিকা প্রদানের আওতায় নিয়ে আসা হবে। আবাসিক শিক্ষার্থীদের দিয়ে টিকা প্রদানের কর্মসূচি শুরু হবে। টিকা প্রদানের পর খুলে দেওয়া হবে হলগুলো। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরাসরি ক্লাস শুরু হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে লিখিত প্রশ্নোত্তরে এ তথ্য জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশনে এসংক্রান্ত প্রশ্নটি উত্থাপন করেন সরকারি দলের সদস্য (নওগাঁ-২) মো. শহীদুজ্জামান সরকার। উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী আরো জানান, সারা বছর  যাতে শিক্ষার্থীরা ডিজিটাল ক্লাসে অংশগ্রহণ করতে পারে সে জন্য একটি ডেডিকেটেড টেলিভিশন চ্যানেল চালুর বিষয়টি বিবেচনাধীন।

একই প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী জানান, শিক্ষার্থীদের ক্ষতিপূরণে প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়কে নিজস্ব সক্ষমতা ও বাস্তবতা অনুযায়ী পুনরুদ্ধার পরিকল্পনা প্রস্তুত করে তা বাস্তবায়নে কার্যক্রম গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন থেকে একটি নির্দেশাবলি (গাইডলাইন) বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঠানো হবে। তিনি আরো জানান, বর্তমানে সব বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া হচ্ছে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইনে পরীক্ষাও নেওয়া হচ্ছে।

অপর এক প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী জানান, করোনা মহামারির ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ২০ হাজার ৪৯৯ স্কুলের মধ্যে ১৫ হাজার ৬৭৬টি এবং চার হাজার ২৩৮ কলেজের মধ্যে ৭০০টি অনলাইন ক্লাস চালু করেছে। স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে অনলাইন ক্লাস নেওয়া হচ্ছে।

সরকারি দলের সদস্য সাহিদুজ্জামানের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তকরণ একটি চলমান প্রক্রিয়া। নীতিমালার আলোকে যোগ্যতার ভিত্তিতে এমপিওবিহীন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে পর্যায়ক্রমে এমপিওভুক্ত করা হয়ে থাকে। যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত নয়, সেগুলোকে এমপিওভুক্ত করার বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।



সাতদিনের সেরা