kalerkantho

শুক্রবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৮। ৬ আগস্ট ২০২১। ২৬ জিলহজ ১৪৪২

বিয়ের চার দিন পর তরুণীর লাশ বাবার বাড়িতে

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

১৬ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় গত শুক্রবার ঋতু আক্তারের বিয়ে হয়। চার দিন পর গতকাল মঙ্গলবার তাঁকে শ্বশুরবাড়ি থেকে বাবার বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল। মেয়েকে বরণ করে নিতে প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন বাবা। কিন্তু গতকাল সকালে আশুলিয়ার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্র থেকে এই তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাঁর স্বামী রুবেল মোল্লাকে।

নিহত ঋতু আক্তার (১৯) আশুলিয়ার খেজুরটেক এলাকার আবুল হোসেন বাবুর মেয়ে এবং এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন।

স্বজনরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে ঋতু আক্তার ও আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুর এলাকার মোল্লাবাড়ির রুবেল মোল্লার মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। গত ১১ জুন তাঁদের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়। গতকাল বাবার বাড়িতে আসার কথা ছিল ঋতুর। বাবাও মেয়েকে বাড়িতে আনার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। হঠাৎ তাঁর কাছে ফোন আসে ‘ঋতু আক্তার অসুস্থ। তাড়াতাড়ি আশুলিয়ার নারী ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চলে আসেন।’ ফোন পেয়ে তিনি দ্রুত হাসপাতালে চলে যান। ঋতুর বাবা আবুল হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমি হাসপাতালে গিয়ে ঋতুকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। এ সময় ঋতুর শ্বশুরবাড়ির লোকজন বলছিল যে ঋতু আত্মহত্যা করেছে। এ সময় পুলিশ এসে একটি কাগজে আমার স্বাক্ষর নেয়। পরে মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।’

আশুলিয়া থানার ওসি মো. কামরুজ্জামান বলেন, তরুণীটি মারা যাওয়ার ঘটনাটি রহস্যজনক। তাই এ ব্যাপারে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ৩০৬ ধারায় একটি মামলা দায়ের ও তরুণীর স্বামী রুবেল মোল্লাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।



সাতদিনের সেরা