kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৮। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২০ সফর ১৪৪৩

পোড়া তেল আর শিমুল দানার ঘি!

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পোড়া তেলের সঙ্গে মেশানো হয় বিষাক্ত রং। এই মিশ্রণে দেওয়া হয় পাম অয়েল ও ডালডা। এরপর চুলায় জ্বালানো হয়। মেশানো হয় ঘির সুগন্ধি। এভাবে তৈরি হচ্ছিল ঘি! পরে তা প্রাণ, আড়ংয়ের মতো নামি ব্র্যান্ডের কৌটায় ভরে বিক্রি করা হচ্ছে দেদার। রাজধানীর পুরান ঢাকার বেগমবাজারে গতকাল শনিবার একটি ভেজাল ঘি কারখানায় অভিযান চালিয়ে এই চিত্র দেখেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। অভিযানে পাঁচ মণ ভেজাল ঘি জব্দ করা হয়। গ্রেপ্তার করা হয় কারখানার মালিক আব্দুস সামাদসহ চারজনকে। ডিবির লালবাগ বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) রাজিব আল মাসুদ বলেন, এসব ভেজাল ঘিতে দুধের কোনো ছিটেফোঁটাও নেই। বাঘাবাড়ী, মিল্ক ভিটা, প্রাণ, আড়ংয়ের মতো নামিদামি ব্র্যান্ডের ইনটেক প্যাকেট করা আসল ঘিয়ের সঙ্গে মিলিয়ে এই নকল ঘি রাজধানীসহ সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছিল। দেখে বোঝার উপায়ও নেই কোনটি আসল আর কোনটি নকল। একই অপরাধে কারখানা মালিক আব্দুস সামাদ চার বছর আগে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। ডিবির কর্মকর্তারা জানান, ভেজাল ঘির কারখানাটিতে হাঁড়িভর্তি পোড়া তেল আর পাম অয়েল পাওয়া যায়। এসব হাঁড়ির ওপর জমেছে ময়লার আস্তর। পোড়া তেলের সঙ্গে পাম অয়েল মিশিয়ে জ্বাল দেওয়ার পর মেশানো হয় ঘিয়ের ফ্লেভার। এর সঙ্গে সশিমুল তুলার বিজ থেকে বানানো এক ধরনের বিষাক্ত রাসায়নিক মিশিয়ে আনা হয় ঘিয়ের রং। এভাবেই ভেজাল ঘি বানানো হচ্ছে ১০ বছর ধরে।