kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৮। ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১। ২০ সফর ১৪৪৩

বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার আভাস

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তত্সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় একটি লঘুচাপ বিরাজ করছে। এর প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় বৃষ্টির সঙ্গে ঝোড়ো হওয়া বয়ে যেতে পারে। আরো দুই-তিন দিন উপকূলবাসীকে ভোগাবে লঘুচাপটি। এটি সর্বোচ্চ সুস্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে। তবে এই লঘুচাপ থেকে ঘূর্ণিঝড়ের কোনো আশঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা।

এদিকে ঝোড়ো হাওয়ার প্রভাবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অফিস। এ সময় উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উত্তর বঙ্গোসাগরে লঘুচাপের প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। লঘুচাপটি দুর্বল হতে আরো দুই-তিন দিন সময় লাগতে পারে। এ ছাড়া সারা দেশেই মৌসুমি বায়ু ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি হতে পারে।’

জানা যায়, সমুদ্রের দূরবর্তী স্থানে শক্তিশালী লঘুচাপ সৃষ্টি হলে ১ নম্বর সংকেত এবং সেখান থেকে ঘূর্ণিঝড়ের সৃষ্টি হলে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেওয়া হয়। এ ছাড়া ঘূর্ণিঝড়ের শক্তি বিবেচনায় ৪ থেকে ১১ নম্বর সংকেত দেওয়া হয়। তবে সমুদ্রবন্দরের নিকটবর্তী এলাকায় লঘুচাপের ফলে গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালার সৃষ্টি হলে শুরুতেই দেওয়া হয় ৩ নম্বর সতর্কতা সংকেত। ফলে ৩ নম্বর সংকেত দেওয়া হলেও বর্তমান লঘুচাপটি থেকে খুব বেশি ভয়াবহতা সৃষ্টির আশঙ্কা কম।

গতকাল আবহাওয়ার সতর্কবাতায় বলা হয়েছে, উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও উপকূলীয় এলাকায় লঘুচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকার আকাশে গভীর সঞ্চারণশীল মেঘের সৃষ্টি হয়েছে। সমুদ্রবন্দর, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও উপকূলীয় এলাকার ওপর দিয়ে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

সারা দেশের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু সারা দেশে বিস্তার লাভ করেছে। এদিকে উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও এর আশপাশের এলাকায় একটি লঘুচাপ রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর সক্রিয় ও উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় আছে। এর প্রভাবে খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ সহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে মাঝারি ধরনের ভারি থেকে ভারি বর্ষণ হতে পারে। গতকাল সকাল ৬টা পর্যন্ত সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে কুমারখালীতে, ৭৪ মিলিমিটার।