kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

ডেঙ্গুর বিস্তার ঠেকাবে ব্যাকটেরিয়া

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডেঙ্গু মশার বিস্তার ঠেকাতে একটি ব্যাকটেরিয়া বেশ কাজে দিচ্ছে। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, ব্যাকটেরিয়াটি ডেঙ্গু ভাইরাসবাহী মশার কার্যক্ষমতা কমিয়ে দিচ্ছে ৭৭ শতাংশ পর্যন্ত। ইন্দোনেশিয়ার ইয়োগাকায়ার্তা শহরে ‘ওয়ার্ল্ড মসকিউটো প্রগ্রামের’ এক গবেষণায় এমনটা দেখা গেছে। ব্যাকটেরিয়াটির নাম ওলবাচিয়া (Wolbachia)।

ওই গবেষণার ফল ইংল্যান্ডের জার্নাল অব মেডিসিনে সম্প্রতি প্রকাশ করা হয়েছে। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে উদ্ভাবিত এই কৌশল বেশ কাজে দেবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

৫০ বছর আগেও ডেঙ্গুজ্বর পরিচিত ছিল না। কিন্তু বর্তমানে সারা বিশ্বে ৪০ কোটি মানুষ এই রোগে আক্রান্ত। বাংলাদেশেও ডেঙ্গু রোগে বহু প্রাণহানি হয়েছে। প্রতিবছরই আমাদের  দেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা যায়।

এই গবেষণায় যুক্ত গবেষক কাটি অ্যান্ডার্স জানান, ওলবাচিয়া ব্যকটেরিয়ায় এডিস মশাকে আক্রান্ত করানো হয়। আশ্চর্যজনকভাবে, ব্যাকটেরিয়াটি সেই মশার কোনো ক্ষতি করে না। কিন্তু ডেঙ্গুবাহী মশার ওই সব অংশকেই ক্ষতিগ্রস্ত করে, যা ডেঙ্গু ভাইরাসকে বহন করে। শুধু তাই নয়, এই ব্যাকটেরিয়া পরবর্তী সময়ে মশার দেহে ডেঙ্গুর জন্য প্রতিকূল পরিবেশ তৈরি করে। এমনকি ওই মশার পরবর্তী বংশধরদের মাঝেও এই প্রতিরোধ বজায় থাকে।

এই গবেষণাটিতে প্রায় ৫০ লাখ ওলবাচিয়া ব্যাকটেরিয়ায় আক্রান্ত মশার ডিম ব্যবহার করা হয়। এসব ডিম প্রতি দুই সপ্তাহে শহরের বিভিন্ন পানিধারণকারী পাত্রে ছাড়া হয়। পরে ডিম বাড়তে ৯ মাস পর্যন্ত সময় দেওয়া হয়েছিল। গবেষণাটি চালাতে পুরো শহরকে ২৪টি অংশে ভাগ করা হয়।

এতে বলা হয়, ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ শতাংশ কমেছে। আক্রান্তের পর হাসপাতালে নেওয়ার সংখ্যা কমেছে ৮৬ শতাংশ। ডা. অ্যান্ডার্স ব্যাকটেরিয়ার এই ক্ষমতাকে ‘প্রাকৃতিকভাবে অলৌকিক’ বলে অভিহিত করেছেন।



সাতদিনের সেরা